ডেস্ক: ফের খবরের শিরোনামে গোরক্ষপুরের বিআরডি মেডিক্যাল কলেজ। শিশুমৃত্যুর জন্য কুখ্যাত হয়ে ওঠা এই হাসপাতাল এবারে খবরে উঠে আসার কারণ এক ১৫ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠল। নির্যাতিতা উত্তরপ্রদেশের বলরামপুরের বাসিন্দা।

সূত্রের খবর, বাড়ির লোকজনদের সঙ্গে রাগারাগি করে এক সপ্তাহ আগেই সে ট্রেন ধরে লখনউে পালিয়ে আসে। স্টেশনেই সোনালী নামে এক মহিলার সঙ্গে তার আলাপ হয়। সোনালী নিজেকে একজন নার্স বলে পরিচয় দিয়ে ওই তরুণীকে মিথ্যে চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এরপরেই রাতে ফোনে চার্জ দেওয়ার নাম করে সোনালি ওই তরুণীকে ছাদে নিয়ে গিয়ে আফরোজ নামের এক ব্যক্তির হাতে তুলে দেয়। এই আফরোজের সঙ্গে আরও দুই তিনজন লোক ছিল। এরপরেই তাঁরা সবাই মিলে ওই নাবালিকাকে ধর্ষণ করার চেষ্টা করে। কিন্তু সে কোনোভাবে নিজেকে বাঁচিয়ে ওই নগ্ন অবস্থাতেই নিচে পালিয়ে আসে এবং চিৎকার শুরু করে। তাঁর চিৎকার শুনে হাসপাতালের বাকি কর্মীরা ছুটে আসে এবং তাকে উদ্ধার করে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়।

পুলিশ গোটা ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেছে। কিন্তু এখনও অবধি কাউকে ধরতে পারেনি বলে খবর পাওয়া গেছে। সিসিটিভি ফুটেজও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযুক্ত যুবক গোরক্ষপুরের বাসিন্দা না অন্য জায়গা থেকে এখানে এসেছিল, সে বিষয়েও তদন্ত করা হচ্ছে। এই মামলায় আরেকটি চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এসেছে যে, ঘটনার ৩৬ ঘণ্টা কেটে যাওয়ার পরেও পুলিশ ওই তরুণীর শারীরিক চিকিৎসা করাতে পারেনি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here