kolkata news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জমায়েত নিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে দেশের একাধিক সরকার। ৩১ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন রাজ্য সরকার স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যাতে জমায়েত কোনওভাবে না হয়। পশ্চিমবঙ্গ সরকার এই বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত। এদিকে, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল স্পষ্ট করেছেন যে, ৫০ জনের বেশি জমায়েত করা যাবে না। উত্তরপ্রদেশ সরকারও জমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কিন্তু রাজ্যের নিষেধাজ্ঞা ধোপেই ঠিকছে না। কারণ, করোনা আতঙ্কের মধ্যেও উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় আয়োজিত হতে চলেছে রামনবমী মেলা।

জানা গিয়েছে, ২৫ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত আয়োজিত হওয়ার কথা এই রামনবমী মেলার। অযোধ্যা মামলার রায় বেরনোর পর এই প্রথম রামনবমী মেলার আয়োজন হতে চলেছে। তবে জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও কীভাবে এই মেলার আয়োজন হতে পারে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে ইতিমধ্যেই। উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে, শতাব্দী প্রাচীন এই রামনবমী মেলা আয়োজন হবে নির্দিষ্ট তারিখেই। যদিও কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে করোনাভাইরাস রুখতে জমায়েত না করার নির্দেশই দেওয়া হয়েছে।

এই প্রেক্ষিতে জেলাশাসক অনুজ কুমার ঝা ঘোষণা করেছেন, সমস্ত রকম সাবধানতা অবলম্বন করেই এবারে রামনবমী মেলার আয়োজন করা হবে এবং সেই মেলা অনুষ্টিত হবে। নির্দিষ্ট দফতর থেকে এই বিষয় বিবৃতি সময়মতোই প্রকাশ করা হবে জানান তিনি। একইসঙ্গে আরও জানান, যেসকল পূণ্যার্থীরা সেখানে আসবেন তাদেরও স্বাস্থ্যের দিকে উপযুক্ত খেয়াল রাখা হবে।

তবে এই সিদ্ধান্তে একেবারে খুশি নন অযোধ্যার প্রধান মেডিক্যাল অফিসার। তিনি আশঙ্কা করছেন, এত বড় জমায়েত এই মুহূর্তে করা একেবারেই উচিত হবে না। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথও এই নিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন। মানুষকে একে অপরের বেশি কাছাকাছি থাকতেও নিষেধ করা হচ্ছে। সেই প্রেক্ষিতেই এই মেলা না করারই পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here