মহানগর ওয়েবডেস্ক: লাদাখ সীমান্তে ভারত এবং চীনের সংঘর্ষের পরবর্তী ক্ষেত্রে পদক্ষেপ নিয়ে টিকটক সহ ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। নরেন্দ্র মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তের পরে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে দেশে। বিরোধীদের একাংশের মতে শুধুমাত্র চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে আখেরে কোন লাভ করতে পারবে না সরকার বা দেশ। কিন্তু অধিকাংশের মতে ভারত সরকারের এই পদক্ষেপ চীনকে শায়েস্তা করবে। এই প্রেক্ষিতে চীন অ্যাপ নিষিদ্ধ হওয়া নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করায় মোদি সরকারের সিদ্ধান্ত নিয়ে কোনো সংশয় থাকছে না। এবার ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের অনুরূপ সিদ্ধান্ত নেওয়ার মুখে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন।

ভারত এবং চীনের সংঘর্ষের পর এই আমেরিকা ভারতের পাশে দাঁড়িয়ে চীনের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছে। এই প্রেক্ষিতে এবার মার্কিন সচিব মাইক পম্পেও জানিয়েছেন, মার্কিন প্রশাসনও টিকটক সহ অন্যান্য নিষিদ্ধ করার কথা ভাবছে। এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, এখনো পর্যন্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের তরফে প্রত্যক্ষভাবে কিছু মন্তব্য না করা হলেও, প্রশাসন এই ধরনের কিছু পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবছে। 

প্রসঙ্গত, দেশের তথ্য পাচার করার অভিযোগে টিকটক সহ একাধিক চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। লাদাখ সীমান্তে সংঘর্ষের পরেই এই চমকপ্রদ সিদ্ধান্ত নেয় নরেন্দ্র মোদী সরকার। ভারতের এই সিদ্ধান্তের পরে চীনের সঙ্গে ভারতের বাণিজ্যিক সম্পর্ক অনেকটাই নষ্ট হবে বলে ধারণা করা হয়েছে। একই সঙ্গে চীনের অর্থনৈতিক লোকসান হবে বলেও বিশেষজ্ঞদের মত। এখন ভারতকে অনুসরণ করে আমেরিকা যদি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয় তবে বিশ্ব বাজারে চীনের জন্য যে বড় ক্ষতি অপেক্ষা করছে তা বলাই বাহুল্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here