amit shah news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সম্পর্কে মার্কিন কমিশন ইউএসসিআইআরএফের বিবৃতি যথাযথ নয়৷ তা পক্ষপাতদুষ্ট, পাল্টা কেন্দ্রীয় সরকারের৷ ইউএসসিআইআরএফ জানিয়েছে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বা ক্যাব বিপজ্জনকভাবে ভুল দিকে যাচ্ছে। যদি সংসদের উভয়কক্ষে এই বিল পাশ হয়ে যায় তাহলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর উপরে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার জারি করা হতে পারে৷ এবার সে বিষয়েই মুখ খুলল কেন্দ্র৷ গতকাল লোকসভায় নাগরিকত্ব বিল পাশ হওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যে একটি বিবৃতি দেয় ধর্মীয় স্বাধীনতা সংক্রান্ত মার্কিন কমিশন৷

এরপরেই বিদেশমন্ত্রক থেকে পাল্টা বলা হয়, এই ধরনের বিবৃতি সঠিক নয়। তা কাঙ্ক্ষিতও নয়। ওই সংস্থাটি নিজের ধারণা নিয়েই চলছে। যে বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করছে তা নিয়ে তাদের সামান্য ধারণাও নেই। কয়েকটি দেশে যাঁরা ধর্মীয় কারণে নির্যাতিত হয়েছেন, তাঁরা যাতে দ্রুত ভারতের নাগরিকত্ব পান, তারই ব্যবস্থা করা হয়েছে নাগরিকত্ব বিলে। আর বলা হয়েছে, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনে বা জাতীয় নাগরিকপঞ্জিতে কোনও ধর্মের ভারতীয়ের নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়ার কথা বলা হয়নি। এমন কথা যাঁরা বলছেন, তাঁদের বিশেষ উদ্দেশ্য আছে। কে নাগরিক আর কে নয়, তা পরীক্ষা করার অধিকার প্রতিটি দেশেরই আছে। আমেরিকারও আছে। নানা পদ্ধতিতে নাগরিকপঞ্জি তৈরি করা যেতে পারে।

প্রস্তাবিত নাগরিকত্ব বিলে বলা হয়েছে, পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান থেকে হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষ যদি ধর্মীয় নিপীড়নের ভয়ে পালিয়ে আসেন, তবে তাঁদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত যাঁরা এদেশে এসেছেন, তাঁরাই নাগরিকত্ব পাওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

ভারতীয় মুসলিমদের সঙ্গে ক্যাবের কোনো সম্পর্কই নেই বলে লোকসভায় দাঁড়িয়ে স্পষ্ট জানান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ তাঁর অভয়, ভারতীয় মুসলিমদের তাড়িয়ে দেবে না মোদী সরকার৷পাশপাশি তাঁর সাফ দাবি দেশের মানুষ এই বিলটিকে মেনে নিয়েছেন৷ তাঁর কথায়, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে নীপিড়িত হিন্দু, শিখ, খ্রিশ্চান, বৌদ্ধ, পার্শি ও জৈন সম্প্রদায়ের শরণার্থীদের কোনো পরিচয় পত্র ছাড়াই ভারতে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে৷ তবে মার্কিন ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক কমিশন ইউএসসিআইআরএফ স্পষ্ট জানিয়েছে, এমন বিল পাশ হলে ভারতের চিরাচরিত ধর্ম নিরপেক্ষতার ছবিটা ধ্বংস হয়ে যাবে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here