national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গত প্রায় চার সপ্তাহ ধরে লাদাখ সীমান্তে মুখোমুখি ভারত ও চিনের সেনা। পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে। তবে ভারতের প্রতি চিনের এই আগ্রাসন একেবারেই ভালোভাবে দেখছে না মার্কিন বিদেশমন্ত্রক। ইউএস ফরেন এফেয়ার্স কমিটির প্রধান এলিয়ট এঙ্গেল জানালেন, দুই দেশের সম্পর্ক নিয়ে আমেরিকা বেশ চিন্তিত। একই সঙ্গে বেজিংকে গণতান্ত্রিক উপায়ে আলোচনার মাধ্যমে সীমান্ত সমস্যা মেটানোর অনুরোধ করেছেন তিনি।

‘ইন্দো-চিন সীমান্তে লাইন অফ একচুয়াল কন্ট্রোলের কাছে চিনা আগ্রাসন নিয়ে আমরা খুবই চিন্তিত। চিন আবার প্রমান করছে যে তারা আন্তর্জাতিক আইনকানুন মানে না এবং প্রতিবেশী দেশকে উত্যক্ত করতেই বেশি পছন্দ করে’, বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘সব দেশের একই ধরণের আইন মেনে চলা উচিত যাতে কোনও দেশ অন্য দেশের প্রতি নাক গলাতে না পারে। আমি চিনের কাছে অনুরোধ করবো, তারা যেন আন্তর্জাতিক আইনকে সম্মান করেন ও ভারতের সঙ্গে সব সমস্যা গণতান্ত্রিক উপায়ে আলোচনার মাধ্যমে মিটিয়ে নেয়।’

উল্লেখ্য, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সীমান্তে সেনাদের মধ্যে উত্তেজনা বাড়লেও দুই দেশের সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ অফিসার ও কূটনৈতিক আধিকারিকরা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার জন্য আলোচনা চালাচ্ছেন। চিনের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পরিস্থিতি শান্ত ও স্বাভাবিক আছে।

যদিও এর পরেও সীমান্তে নিজেদের ঘাঁটিতে আর্টিলারি, ইনফ্রান্ট্রি কমব্যাট ভেহিকেল ও আরও অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র মজুত করে ফেলেছে চিন। পাল্টা ভারতের তরফ থেকেও একাধিক ভারী যুদ্ধ ক্ষেপণাস্ত্র সীমান্তে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বায়ুসেনার তরফ থেকেও সীমান্তে নজরদারি চালানো হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here