rape,

মহানগর ডেস্ক: প্রতিদিন নারী নির্যাতনের শিরোনামে উঠে আসছে যোগীর রাজ্য। মঙ্গলবারই যৌন হেনস্থায় অভিযুক্ত জামিনে ছাড়া পেয়ে নির্যাতিতার বাবাকে খুন করে। আবার সেই উত্তরপ্রদেশ। উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে বাড়ির সামনের গর্ত থেকে উদ্ধার করা হল ১২ বছরের মেয়ের দেহ। গত ছয় দিন ধরে ওই মেয়েটি নিখোঁজ ছিল বলে জানা গিয়েছে।

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে মেয়েটি নিখোঁজ ছিল। ২৮ ফেব্রুয়ারি পরিবারের সদস্যরা থানায় রিপোর্ট করেন। বুলন্দশহরের পুলিশ জানিয়েছে, বাড়ির থেকে ১০০ মিটার দূরে একটি গর্ত থেকে মেয়েটির দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য দেহটিকে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষণের সম্ভাবনা খারিজ করে দেওয়া হচ্ছে না। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, ক্ষেতে মায়ের সঙ্গে কাজ করছিল দুই ভাই-বোন। জল তেষ্টা পাওয়ায় দুজনে বাড়ির দিকে আসে। তারপর থেকেই মেয়েটিকে খুঁজে পাওয়া যায় না।

দিনে দিনে উত্তরপ্রদেশে নারী নির্যাতন, হেনস্থা ধর্ষণের ঘটনা বেড়েই চলেছে। প্রতিদিন উঠে আসছে নারী নির্যাতনের খবর। কিছুদিন আগেই হাথরাসের একটি ক্ষেত থেকে তিন জন কিশোরীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। একজনকে বাঁচানো সম্ভব হলেও, বাকি দুই জনকে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। অন্য দিকে, মঙ্গলবার যৌন হেনস্থায় অভিযুক্ত ব্যক্তি জামিন থেকে ছাড়া পেয়েই নির্যাতিতার বাবাকে গুলি করে হত্যা করল। সোমবার উত্তরপ্রদেশের হাথরাসে ঘটনাটি ঘটেছে। নির্যাতিতা স্থানীয় প্রশাসনের কাছে বাবার মৃত্যুর বিচার চেয়েছেন।
জানা যায় ২০১৮ সালে গৌরব শর্মা নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে উত্তরপ্রদেশে হাথরাসের বাসিন্দা তরণীর বাবা অভিযোগ করেন। অভিযোগে তরুণীর বাবা জানান, গৌরব শর্মা তাঁর মেয়েকে যৌন হেনস্থা করেছে। এরপর পুলিশ গৌরবকে গ্রেফতার করে। কিছুদিন জেলও খাটেন। কয়েক মাস পর জামিনে ছাড়া পেয়ে যায় গৌরব শর্মা। তারপর থেকেই প্রতিশোধ নেওয়ার চেষ্টা করেন। সুযোগ পেয়ে যান সোমবার। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্তের কাকীমা ও স্ত্রী পুজো দিতে মন্দিরে দিতে গিয়েছিলেন, সেই সময় নির্যাতিতার বাবাকে গুলিকে করে হত্যা করল গৌরব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here