ডেস্ক: জম্মু কাশ্মীরে কনস্টেবল মহম্মদ সালিম জঙ্গিদের হাতে শহিদ হওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই সেই খুনের ব্দলা নিয়েছে পুলিশ। রবিবার সকালে কুলগামের খুদওয়ানি এলাকার ওয়ানি মহল্লায় সেনাবাহিনী–সিআরপিএফ এবং পুলিশের যৌথ অভিযানে খতম করা হয়েছে তিন জঙ্গিকে। তবে সেই অভিযানের আগেই ভাইরাল হয়ে যায় জম্মু কাশ্মীরের পুলিশ কনস্টেবল মহম্মদ সালিমের মৃত্যুর আগের ভিডিও। আর সেখানেই দেখা গিয়েছে নির্ভীক, দুঃসাহসিক, অকুতোভয় মহম্মদ সালিমকে।

ভাইরাল হয়ে যাওয়া সেই ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া সালিমের সঙ্গে কথা বলছে জঙ্গিরা। উপত্যকায় সেনা গুলিতে খতম হওয়া জঙ্গি আদিল পাঠাণের এনকাউন্টারের বিষয়ে তাঁর কাছ থেকে কিছু জানার চেষ্টা করছে জঙ্গিরা। তবে জঙ্গিদের হাতে ব্যাপকভাবে অত্যাচারিত শহিদ কনস্টেবল একটুও ভয় পাননি। জঙ্গিদের সঙ্গে কথা বলার সময় তাঁর মুখে লেগে ছিল হাসি। কোনও রকম ভয়ের রেখা তো তাঁর মুখে ছিলই না বরং অত্যন্ত ঠান্ডা মাথায় জঙ্গিদের সঙ্গে কথা বলছিলেন ওই কনস্টেবল। এবং জঙ্গিদের কার মৃত্যুর দায় তিনি স্বীকার করেননি। জিজ্ঞাসাবাদের পরেই জঙ্গিরা গুলি করে হত্যা করে মহম্মদ সালিমকে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাতে দক্ষিণ কাশ্মীরের কুলগাম জেলার মুতালহামা এলাকায় নিজের বাড়ি থেকে অপহৃত হন মহম্মদ সালেম শাহ। সম্প্রতি ছুটি নিয়ে কিছু দিনের জন্য বাড়ি গিয়েছিলেন তিনি। এরপর শনিবার কুলগাম থেকে উদ্ধার করা হয় তাঁর দেহ। পুলিশি তদন্তে জানা গিয়েছে, হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গি গোষ্ঠীরাই খুন করেছে সালিমকে। আরও জানা গিয়েছে, সালিমের শরীরে একাধিক ক্ষতচিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। যা দেখে অনুমান করা যায়, মৃত্যুর আগে নৃশংস অত্যাচার চালানো হয়েছে সালিমের উপর। সেই ঘটনার পাল্টা দিয়ে এদিন ৩ জঙ্গিকে খতম করেছে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here