মহানগর ওয়েবডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের কানপুরে এক গ্যাংস্টারকে গ্রেপ্তার করতে গিয়ে আট পুলিশ কর্মীর মৃত্যুর ঘটনায় ইতিমধ্যেই উত্তাল গোটা দেশ। এহেন পরিস্থিতিতে জানা গেল ‘ঘর শত্রু বিভীষণ’-এর জেরেই ঘটেছে এমন কাণ্ড। গ্যাংস্টার বিকাশ দুবেকে গ্রেপ্তারী অভিযানের গোপন খবর থানা থেকেই জানিয়ে দিয়েছিল কোনও বিশ্বাসঘাতক। কল রেকর্ড অনুসন্ধান করে ইতিমধ্যেই সে বিষয়ে তথ্য পেয়েছে তদন্তকারীরা। পাশাপাশি এই ঘটনার কথা স্বীকার করেছে সম্প্রতি গ্রেপ্তার হওয়া বিকাশ দুবের এক সহচর।

গত শনিবার দয়া শংকর অগ্নিহোত্রী নামে বিকাশ দুবের দলের এক অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার অনুসন্ধানে ২৫ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছিল। পুলিশের জেরায় জানিয়েছে বিকাশ দুবে কে গ্রেফতার করতে যে পুলিশি অভিযান চালানো হচ্ছে তার খবর আগাম পেয়ে গিয়েছিল দুবে। থানা থেকে ফোন করে এ তথ্য ফাঁস করা হয়। এরপর ২৫ থেকে ৩০ জনকে ফোন করে দুবে। তারপর অবশ্য দয়া শংকরের দাবি, এরপর যখন এনকাউন্টারের ঘটনা ঘটে তখন ঘরের মধ্যে বন্দি ছিল সে ফলে কিছুই তার নজরে পড়েনি। তবে থানার অন্তর থেকে খবর দেওয়া সেই বিশ্বাসঘাতককে খুঁজে বের করতে কোনও কার্পণ্য করছেনা তদন্তকারীরা। ইতিমধ্যেই সন্দেহভাজন এক পুলিশকর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। থানার প্রত্যেক পুলিশকর্মীর কল ডিটেলস চেক করা হচ্ছে। অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে তদন্তকারীরা।

এদিকে বিকাশ দুবেকে পাকড়াও করতে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে পুলিশ। একাধিক দল গঠন করে বিভিন্ন জায়গায় চলছে তল্লাশি অভিযান। সিল করে দেওয়া হয়েছে নেপাল সীমান্ত। পুলিশের দাবি বেশিদিন আর নিজেকে লুকিয়ে রাখতে পারবে না দুবে। শীঘ্রই পুলিশের জালে ধরা পড়বে সে। পাশাপাশি পুলিশের তরফ থেকে ইতিমধ্যেই বিকাশ খোঁজ দিতে পারলে পুরস্কার মূল্য ১ লক্ষ টাকা ঘোষণা করা হয়েছে। সঙ্গে আরও ১৮ জন অভিযুক্তের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে যাদের খোঁজ নিলে ২৫ হাজার টাকা করে মিলবে পুরস্কার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here