মহানগর ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্রীয় সরকারের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে তখন উত্তাল গোটা দেশ। দিল্লিতে শাহীনবাগে সরকারের এই আইনের বিরুদ্ধে যখন শান্তিপূর্ণ ধরনা চলছে তখন হিংসাত্মক আন্দোলনের ফেটে পড়েছিল উত্তরপ্রদেশ। সেই ঘটনার তদন্তে নেমে সোমবার গ্রেপ্তার করা হল উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেসের সংখ্যালঘু সেলের চেয়ারম্যানকে। শাহনওয়াজ আলম নামে ওই কংগ্রেস নেতা গ্রেপ্তার হওয়ার পর রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তরপ্রদেশে রাজনীতিতে।

মঙ্গলবার উত্তর প্রদেশ পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, গত ১৯ ডিসেম্বর সিএএ প্রতিবাদের নামে রাজ্যে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে শাহনাওয়াজের বিরুদ্ধে থানায় এফআইআর দায়ের হয়েছিল। অবশেষে সোমবার রাতে ওই এলাকা থেকেই গ্রেপ্তার করা হয় অভিযুক্তকে। তবে দলীয় নেতার গ্রেপ্তারি ভালোভাবে নেয়নি উত্তর প্রদেশের কংগ্রেস দল। উত্তর প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অজয় কুমার লাল্লু এবং কংগ্রেস পরিষদীয় দলের নেত্রী আরাধনা মিশ্র হযরতগঞ্জ থানায় গিয়ে উপস্থিত হন। থানার অন্দরে তারা যখন কথাবাত্রা বলছিলেন সেই সময় বাইরে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে সমর্থকদের ওপর লাঠিচার্জ করে পুলিশ। ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। এদিকে আলমের গ্রেফতারতে বড়সড় প্রতিবাদে নামার পরিকল্পনা শুরু করেছে কংগ্রেস দল।

পাশাপাশি এই ঘটনায় কংগ্রেসের তরফে স্পষ্ট জানানো হয়েছে এটা পুরোপুরি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। বিজেপি সরকার কংগ্রেস দলকে দাবিয়ে রাখতে দলের নেতাদের গ্রেপ্তারের রাস্তায় হাঁটছে। পাশাপাশি দলীয় কর্মীদের ওপর পুলিশি হামলার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। কর্মীদের ওপর লাঠিচার্জের ঘটনার ভিডিও টুইটারে শেয়ার করে, ঘটনাকে ন্যাক্কারজনক আখ্যা দিয়ে পুলিশি হামলার নিন্দা জানিয়েছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here