kolkata news
Highlights

  • শুধু রবীন্দ্রভারতী নয়, একই ঘটনা ঘটল এবার মালদায়
  • এখানে অবশ্য আরও বিকৃত রুচির পরিচয় দিয়েছে স্কুলের চার ছাত্রী
  • রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘চাঁদ উঠেছিল গগনে’ গানটিকে বিকৃত করে শুধু গাওয়া নয়, তাতে অত্যন্ত অশ্লীল শব্দ জুড়ে দেয় তারা


নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদা:
শুধু রবীন্দ্রভারতী নয়, একই ঘটনা ঘটল এবার মালদায়। এখানে অবশ্য আরও বিকৃত রুচির পরিচয় দিয়েছে স্কুলের চার ছাত্রী। ওই চার ছাত্রী মালদার বার্লো গার্লস হাইস্কুলের বিজ্ঞান ও বাণিজ্যবিভাগের একাদশ শ্রেণিতে পড়ে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘চাঁদ উঠেছিল গগনে’ গানটিকে বিকৃত করে শুধু গাওয়া নয়, তাতে অত্যন্ত অশ্লীল শব্দ জুড়ে দেয় তারা। গানটি পোস্টও হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিয়োটি ভাইরাল হতে বেশি সময় নেয়নি। রবীন্দ্রভারতীর ঘটনা সামনে আসতেই এই ভিডিয়োটি ভাইরাল হয়। স্কুলের পোশাক পরা অবস্থায় ওই চার ছাত্রী গানটি গাইছিল।

ঘটনার পর আসরে নামে স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা দীপশ্রী মজুমদার জানিয়েছেন, তাঁর স্কুলের ওই চার ছাত্রীর এই কাণ্ডে তিনি স্তম্ভিত। বলার কোনও ভাষা নেই। বিষয়টি নিয়ে শনিবার সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ স্কুলের শিক্ষিকাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন তিনি। সেখানে ডাকা হয় ওই চার ছাত্রীর অভিভাবকেও। এই বৈঠকেই ওই চার ছাত্রীর ভবিষ্যৎ নির্ধারিত হবে। প্রধান শিক্ষিকা জানিয়েছেন, কড়া পদক্ষেপ না নিলে এমন অনৈতিক ও অশালীন আচরণ বন্ধ হবে না।

এদিকে, রবীন্দ্রভারতীর ঘটনা সামনে আসতেই এই ভিডিয়োটি ভাইরাল হলে নিজেদের কৃতকর্ম বুঝতে পেরে ওই চার ছাত্রীর মধ্যে দুই ছাত্রী সোশ্যাল মিডিয়াতে ক্ষমা প্রার্থনা করেছে। তারা জানিয়েছে, স্কুলের অসম্মান করতে তারা চায়নি। মজা করে ভিডিয়োটি শ্যুট করেছিল তারা। কিন্তু কীভাবে ভিডিয়োটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড হল, তা তারা জানে না বলে জানিয়েছে। নেটিজেনদের কাছে তারা আবেদন করেছে, যার যার কাছে ভিডিয়োটি আছে তা মুছে দিতে। পাশপাশি, স্কুল যেন তাদের বিরুদ্ধে কড়া কোনও পদক্ষেপ না নেয়, তার আবেদন জানিয়েছে তারা।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ‍্যালয়ে বসন্ত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। একদল ছাত্র-ছাত্রী যেভাবে কবিগুরুর প্রাঙ্গনে তাঁর সৃষ্টিতে যেভাবে অশ্লীল ভাষার প্রয়োগ করে নিজেদের শরীর প্রদর্শনের মাধ‍্যমে তা সোশ‍্যাল মিডিয়ায় আপলোড করেছেন, তাতে সারা রাজ‍্যের মানুষ নিন্দায় সরব হয়েছেন। তারপর নড়েচড়ে বসে বিশ্ববিদ‍্যালয় কর্তৃপক্ষ। ছাত্র ছাত্রীদের ডেকে নিংশর্ত ক্ষমা চাইতে বাধ‍্য করেছে বলে বিশ্ববিদ‍্যালয় সূত্রের খবর। সেই সঙ্গে এই ঘটনার জেরে চন্দননগর শহর ও কলেজে এলাকায় সর্বত্রই নিন্দার ঝড় উঠেছে। বসন্ত উৎসবের নামে একদল ছাত্র-ছাত্রী যে বেলেল্লাপনার নজির দেখিয়েছেন, তাতে নোবেলজয়ী কবির প্রতি চরম অসম্মান করা হয়েছে বলে অভিমত সমস্ত শ্রেণির মানুষের। সোশ‍্যাল মিডিয়াতেও এ নিয়ে তীব্র নিন্দার ঝড় বয়ে চলেছে। অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবি জনিয়েছেন অনেকে।

এই ঘটনার পর এবার উত্তাল হল মালদার ঘটনায়। চার স্কুল ছাত্রী যে বিকৃত রুচির পরিচয় দিয়েছে, তাতে নিন্দার ঝড় উঠেছে সব মহলে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘চাঁদ উঠেছিল গগনে’ গানটিকে বিকৃত করে শুধু গাওয়া নয়, তাতে অত্যন্ত অশ্লীল শব্দ জুড়ে দেয় তারা। গানটি পোস্টও হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিয়োটি ভাইরাল হতে বেশি সময় নেয়নি। ঝড়ের গতিতে ছড়িয়ে পড়ে। তারপর শুরু হয় বিতর্ক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here