ডেস্ক: ব্যাটসম্যান হিসাবে তিনি যে বিশ্বসেরা সেই বিষয়ে সন্দেহ থাকার আর কোনও অবকাশ নেই। নিজের ফিটনেস এক এক আলাদা পর্যায়ে নিয়ে গেলেও দিনের শেষে রক্ত মাংসের মানুষ বিরাট কোহলি। ক্লান্ত তিনিও হন, বিশ্রামের প্রয়োজন তাঁরও হয়। সেই কারণেই ৬ মার্চ থেকে শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজ থেকে সম্ভবত বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের শিরদাঁড়া তথা অধিনায়ক বিরাটকে। সম্প্রতি এমন ইঙ্গিতই মিলেছে বিসিসিআই-এর তরফ থেকে।

ছুটি কাটিয়ে সাতপাকে বাঁধা পড়েই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিলেন বিরাট। টেস্ট সিরিজে দল একাধিক বার ব্যর্থ হলেও শেষ টেস্ট জিতে নিজের জাত চিনিয়েছিলেন তিনি। একই পুনরাবৃত্তি হয় একদিনের সিরিজেও। এরপর ২০ ওভারের প্রথম ম্যাচেও তাঁরই অধিনায়কত্বে ম্যাচ পকেটে পুরে নেয় টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে টানা ক্রিকেটের মধ্যে ছিলেন কোহলি। সামনে রয়েছে আইপিএল, তারপর কঠিন ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া সফর। সে সময় যে বিশ্রামের কোনও অবকাশই থাকবে তা ভাল করেই জানেন কোহলি সহ ক্রিকেট বোর্ডের আধিকারিকেরা। তাই শ্রীলঙ্কায় সম্ভবত বাংলার বাঘেদের সঙ্গে দ্বৈরথ দেখার সম্ভাবনা নেই ক্রিকেট প্রেমীদের।

বিষয়টি নিয়ে যদিও এখনও কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। বোর্ড সূত্রে জানা গিয়েছে বিরাট নিজেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবেন। তবে বোর্ডের এক শীর্ষ আধিকারিক এক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ”বিরাট বিশ্রাম নিতে চাইলে, মঞ্জুর করে দেওয়া হবে। টুর্নামেন্টে বিরাট খেলবেন কি খেলবেন না, সেই বিষয়টি একান্তই তাঁর নিজস্ব সিদ্ধান্ত। তবে কোনও কিছুই নিশ্চিত নয়।” ২০১৭ সালে সংবাদ মাধ্যম যখন তাঁকে বিশ্রাম নিয়ে প্রশ্ন করেছিল তখন প্রচন্ড রেগে গিয়ে বলেছিলেন তিনিও মানুষ , তাঁর শরীরেও পরিশ্রম হয়। তিনি আরও বলেন যে, ”আমি রোবট নই। আমি মানুষ, আমার চামড়া কাটলেও রক্ত বেরোবে।”

তিনি বিশ্রাম নেবেন কিনা এই সিদ্ধান্ত একান্তই তাঁর নিজের হলেও, বিশ্রামের বিষয়টি সংবাদমাধ্যমে আসার পরই হতাশ হয়েছেন এশিয়ার ক্রিকেট প্রেমীরা। তিন দেশের এই টুর্নামেন্ট যে বিরাট ছাড়া এর আকর্ষণ হারাবে একথা হলফ করে বলা যায়। বিরাট ছাড়াও বিশ্রাম প্রাপ্যদের তালিকায় রয়েছেন জশপ্রীত বুমরা, ভুবনেশ্বর কুমার প্রমুখ। তাদের কবে বিশ্রাম দেওয়া হয় সেটাই হবে দেখার বিষয়।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here