মহানগর ওয়েবডেস্ক: আজ থেকে ঠিক ছ’বছর আগে ভারতীয় টেস্ট দলের ক্যাপ্টেনসির গুরুভার বর্তেছিল বিরাট কোহলির কাঁধে। সালটা ছিল ২০১৪।

চার ম্যাচের বর্ডার-গাভাস্কর টেস্ট সিরিজ খেলতে ক্যাঙারুর দেশে উড়ে গেছিল এমএস ধোনির টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু চোটের জন্য প্রথম টেস্টে মাঠে নামতে পারেননি ধোনি। অ্যাডিলেডে টেস্টে ক্যাপ্টেনসি করেন কোহলি।

এই টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে কোহলির ১৪১ রানেও ভারতকে ৪৮ রানে হারতে হয়েছিল। কোহলি বলছেন, অ্যাডিলেড টেস্ট হারই তাঁর এবং তাঁর ইন্ডিয়া টিমকে শিখিয়েছিল অনেক কিছু। কোহলির মতে ভারতের টেস্ট সাফল্যের জন্য অ্যাডিলেড ছিল মাইলস্টোন।

কোহলি মঙ্গলবার টুইটারে এই টেস্টের দু’টি ছবি পোস্ট করে লিখলেন, “আমাদের টেস্ট যাত্রা ফিরে দেখলে বলতে হবে ২০১৪-র অ্যাডিলেড টেস্টের জন্যই আজ আমরা এই জায়গায়। ভীষণ স্পেশাল ও গুরুত্বপূর্ণ এই টেস্ট দু’দলের জন্যই ছিল আবেগমথিত। দর্শকদের জন্যও উপভোগ্য ছিল। যদিও আমরা অল্পের জন্য লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারিনি আর সেটাই আমাদের শিখিয়েছিল।”

এই টেস্টে প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়া। স্টিভ স্মিথ (১৬২) ও ডেভিড ওয়ার্নার (১৪৫) ও মাইকেল ক্লার্কের ( ১২৮) সৌজন্যে প্রথম ইনিংসে ৫১৭-৭ করে ঘোষণা করে অজিরা। জবাবে ভারত কোহলির ১১৫ রানের উপর নির্ভর করে ৪৪৪ তুলতে পারে। ন্যথান লিয়ঁ পাঁচ উইকেট নেন। দ্বিতীয় ইনিংসে ফের সেঞ্চুরি করেন ওয়ার্নার। ২৯০/৬ করে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে অস্ট্রেলিয়া। ভারতের হয়ে ওপেনার মুরলী বিজয় ৯৯ রানে আউট হন। কোহলি ১৪১ রানের ইনিংস খেলেও দলকে বাঁচাতে পারেনি।

কোহলি আরও যোগ করেন, ‘‘নিজেদের পুরো মন দিয়ে কিছু সম্ভব। কারণ আমরা সেটা করার জন্য দায়বদ্ধ থাকি। খুব কঠিন হয় শুরুটা। কিন্তু প্রায় করেই ফেলেছিলাম। আমরা সবাই বদ্ধপরিকর ছিলাম। টেস্ট দল হিসেবে এটাই আমাদের চলার একটা মাইলস্টোন হয়ে থাকবে।”

এই সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ ছিল গাবায়। ফের ধোনি ক্যাপ্টেনসি করেন। অজিরা চার উইকেটে জেতে। তৃতীয় ম্যাচটি ছিল মেলবোর্নে। যা ড্র হয়। এই টেস্টের পরেই ধোনি জানিয়ে দেন তিনি আর টেস্ট ক্রিকেট খেলবেন না। ফের সিরিজের চতুর্থ ও শেষ টেস্টে ক্যাপ্টেন হন কোহলি। এই টেস্টও ড্র হয়। এরপর থেকে কোহলিই টেস্ট ও সব ফরম্যাটের ক্যাপ্টেনসি সামলাচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here