মহানগর ওয়েবডেস্ক: নিউজিল্যান্ডের হোয়াইট আইল্যান্ডে কোনও পর্যটকের আর বেঁচে থাকার সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়ে দিল নিউজিল্যান্ড পুলিশ। সোমবার আচমকাই জেগে ওঠে আগ্নেয়গিরি। সেই সময় প্রায় ৫০ জন পর্যটক সেখানে ছিলেন। পর্যটকে ঠাসা ছোট্ট দ্বীপ হোয়াইট আইল্যান্ডে অগ্নুত্‍‌পাতের জেরে বহু মানুষ আহত ও নিখোঁজ হয়ে পড়েছিলেন বলে প্রাথমিকভাবে জানায় পুলিশ। সে দেশের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরডেন জানিয়েছেন, সোমবার যখন আগ্নেয়গিরি জেগে ওঠে, তখন প্রায় শতাধিক পর্যটক হোয়াইট আইল্যান্ডে অথবা তার কাছেই ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর কথায়, ‘অনেকেরই আহত হওয়ার খবর মিলছে, তাঁদের সৈকতের দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। যাঁরা আহত হয়েছে, তাঁদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।’ জিওনেটের তরফে জানানো হয়েছে, মাঝারি মানের অগ্নুত্‍‌পাতের ঘটনা ঘটেছে। সতর্কতার স্তর ৪ নম্বর ছিল। এটি অঙ্কটাই ৫ হয়ে গেলে তাকে গুরুতর অগ্নুত্‍‌পাত্‍‌ বলে চিহ্নিত করা হয়।

নিউ জিল্যান্ডের মূল ভুখণ্ড থেকে প্রায় ৫০ কিমি দূরে অবস্থিত এই হোয়াইট আইল্যান্ড। বিজ্ঞানীরা সম্প্রতি সেখানে আগ্নেয়গিরি সক্রিয় হয়ে ওঠার আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। তারপরেও কেন এত বিপুল পরিমাণে পর্যটককে সেখানে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হল, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।মূল ভূখণ্ড থেকেই সাদা দ্বীপের আগ্নেয়গিরি জেগে ওঠার পর আকাশে ছেয়ে যাওয়া ধোঁয়া প্রত্যক্ষ করা যায়। বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের আশঙ্কা, আগ্নেয়গিরি থেকে ছড়িয়ে পড়া ছাই আশপাশের এলাকাকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। আগ্নেয়গিরি জেগে ওঠায় উদ্ধারকাজ চালানো সম্ভব হয়নি। পরিস্থিতি জটিল হতে থাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here