ডেস্ক: ফের কেন্দ্রের সঙ্গে বড় সংঘাতের পথে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় গুলিতে আগামীকাল পরীক্ষার চাপ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ সম্প্রচারিত করা হবে না বলে বলে জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

কেন্দ্র ও রাজ্যের সম্পর্কের ‘উষ্ণতা’ সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নন, এমন মানুষ খুব কমই রয়েছেন। সেই ‘উষ্ণতা’ একধাপ বাড়িয়ে এবার মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের নির্দেশ নাকচ করে দিল রাজ্য। দিনকয়েক আগেই মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক সহ ইউজিসির তরফে নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছিল, সমস্ত স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় গুলিতে নরেন্দ্র মোদীর ভাষণ সম্প্রচার করতে হবে। কিন্তু শিক্ষামন্ত্রী এদিন স্পষ্ট করেন, ”এখন ভাষণ শোনানোর সময় নেই।”

পার্থবাবু বলেন, ”রাজ্যে মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা রয়েছে সামনে। এখন আমাদের ভাষণ শোনানোর সময় নেই। এটা কি জাতীয় ভাষণ যে সকলকে শোনাতে হবে? আমরা ইউজিসির অনেক নির্দেশই মানি না। সব নির্দেশ যে মানতে হবে, এমন কোনও কথা নেই।” শিক্ষামন্ত্রীর এই বক্তব্যেই সাফ হয়ে গিয়েছে, পরীক্ষার চাপ কমানোর টিপস আপাতত প্রধানমন্ত্রীর মুখ থেকে শুনতে পারবেন না এরাজ্যের পড়ুয়ারা।

উল্লেখ্য, সর্বদাই কেন্দ্রের যে কোনও নির্দেশিকার কড়া বিরোধিতা করে থাকেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দিনদুয়েক আগে নদিয়ার জনসভায় দাঁড়িয়েও দলনেত্রী সটান ঘোষণা করেন, ”মোদীর স্বাস্থ্য বিমা আমাদের রাজ্যে লাগু হবে না। আগে থেকেই আমাদের নিজেদের স্বাস্থ্য বিমা রয়েছে।” ফলে মোদীর ভাষণ যে মমতা কোনও ভাবেই চলতে দেবেন না সেই আশঙ্কা আগে থেকেই ছিল। শেষ পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্তও জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here