গোর্খাল্যান্ডের প্রতিশ্রুতি কখনই দেয়নি বিজেপি, পাহাড় রাজনীতিতে ভোল বদল দিলীপের

0
305

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বঙ্গ রাজনীতিতে পাহাড় বরাবরই বিপরিত মেরু। সে বাম আমল হোক বা তৃণমূল জামানা। সম্প্রতি, দার্জিলিংয়ের আনাচে কানাচে দুই একটা ঘাসফুল গজালেও তা অবশ্য মিইয়ে গিয়েছে তুষারের দাপটে। লোকসভা নির্বাচনে এবারও দার্জিলিংয়ে ফুটেছে পদ্ম। দার্জিলিংয়ে গেরুয়ার এহেন সাফল্যে অবশ্য গোর্খাল্যান্ডকেই দেখেছিলেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। প্রকাশ্যে বিজেপির তরফে বলা হয়েছিল দার্জিলিংয়ের স্থায়ী সমাধান চান তাঁরা। এই স্থায়ী সমাধান উস্কাচ্ছিল গোর্খাল্যান্ডকেই তবে একুশের মহারণের আগে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়ে দিলেন, গোর্খাল্যান্ডের প্রতিশ্রুতি কখনই দেয়নি তাঁর দল।

গোর্খাল্যান্ডের দাবি পাহাড়ে বহুদিনের। ২০১৭ সালে মমতা সরকারের আমলে ফের একবার উত্তাল হয়ে ওঠে সেই আন্দোলন। তৃণমূলের তরফে অভিযোগ তলা হয়, এই আন্দোলোণকে মদত জুগিয়ে গিয়েছে বিজেপি। এরপর দিলীপ ঘোষের গর্খাল্যান্ড ইস্যুতে এহেন মন্তব্য আশঙ্কার মেঘ জমেছে পাহাড়ের মনে। সম্প্রতি জলপাইগুড়িতে এক কর্মিসভার পর সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে দিলীপ বলেন, ‘আমরা গোর্খা সম্প্রদায়ের উন্নয়ন চাই, ওদের দাবি দাওয়ার প্রতি আমাদের সমবেদনা রয়েছে। কিন্তু কোনওভাবেই আলাদা রাজ্যের প্রতিশ্রুতি দিইনি আমরা।’ তবে দিলীপের এই মন্তব্যকে পাত্তা দিতে নারাজ পাহাড়ের রাজনৈতিক দল গোর্খা ন্যাশনাল লিবারেশন ফ্রন্টের মুখপাত্র নীরজ শর্মা। তাঁর কথায়, ‘দিলীপ ঘোষের রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে তাই এই ধরণের মন্তব্য করছেন। কিন্তু আমরা আমাদের দাবিতে অনড়। আমাদের সমস্যার স্থায়ী সমাধান চাই আমরা।’

এদিকে পলাতক গোর্খা জনমুক্তি নেতা রোশন গিরিও মহানগরকে দেওয়া এক গোপন সাক্ষাৎকারে দাবি করেন, বিজেপি তাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে গোর্খাল্যান্ডের বিষয়টি নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে স্থায়ী সুরাহার। বিজেপির উপরে আস্থাও আছে আমাদের। এরইমাঝে দিলীপের এই বক্তব্য নতুন করে চাপানউতোর তৈরি করেছে পাহাড়চূড়ায়। এদিকে রাজনৈতিক মহলের দাবি, গোর্খাল্যান্ডের দাবি দার্জিলিংয়ে দীর্ঘদিন ধরে থাকলেও এর স্থায়ী সমাধান আদৌ হবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। বিজেপি বিষয়টি একটা সময়ে গোপনে সমর্থন জানালেও তা শুধুমাত্র রাজনৈতিক সুবিধালাভের জন্য ছিল। আর নির্বাচনের পরেই দিলীপের বক্তব্যে মিলল তার প্রমাণ। এমনই দাবি বিশিষ্ট মহলের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here