mamata attacks yogi

Highlights

  • সিএএ-র বিরুদ্ধে ছাত্রদের ধরণা মঞ্চে ফের মমতা
  • “সিএএ লাগু করার এত তাড়াহুড়ো কেন?”
  • যোগী আদিত্যনাথ সরকারের সমালোচনা মমতার

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ফের একবার পড়ুয়াদের মঞ্চে হাজির মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সিএএ-এনআরসি বিরোধী আন্দোলনে রাস্তায় নেমেই প্রতিবাদে গর্জে উঠলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। পর পর দুদিন রানি রাসমনি অ্যাভিনিউয়ে তৃণমূল কংগ্রেস ছাত্র পরিষদের ধরনা মঞ্চে হাজির হন মমতা। নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টিকে নিশানা করে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন এক নিরবিচ্ছিন্ন প্রক্রিয়া। বিজেপি কেন এত তাড়াহুড়ো করছে?

নাগরিকত্ব আইন কি বৈধ নাগরিকদের অধিকার কেড়ে নেওয়ার ষড়যন্ত্র? বৈধ নাগরিকদের অধিকার কেড়ে বিজেপি-কে সমর্থন করা বিদেশিদের নাগরিকত্ব দেওয়ার ষড়যন্ত্র নয় তো!’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য, ‘বুঝতে হবে, সিএএ-এনআরসি-এনপিআর আসলে একে অপরের সঙ্গে যুক্ত।’ দেশে সবার প্রথম সিএএ চালু করা নিয়ে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকেও একহাত নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ‘সিএএ নিয়ে স্পষ্ট আইনই তৈরি হয়নি। যোগী আদিত্যনাথের উত্তরপ্রদেশ একাই ৩০ হাজার উদ্বাস্তু খুঁজে বের করে ফেলেছে।’ প্রশ্ন মমতার।

এর আগে প্রধানমন্ত্রীকে ‘পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত’ বলে কটাক্ষ করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গেরুয়া শিবিরের বারবার ‘পাকিস্তান’ প্রসঙ্গকে কটাক্ষ করে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘ওদের কি পাকিস্তানের সঙ্গে যোগসাজস রয়েছে? নাকি ওরা পাকিস্তানের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর?’

সোমবার তৃণমূল নেত্রী দাবি জানিয়েছিলেন, ‘যে দলের যেখানে শক্তি, তারা সেখানে আন্দোলন করুক’। ঠিক একই সময়ে দিল্লিতে সনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বে বিজেপি-বিরোধী দলগুলির বৈঠক চলছিল। তিনি যে রাস্তায় থেকেই আন্দোলনের পক্ষে, মন্তব্যের মাধ্যমে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাই স্পষ্ট করেছেন বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here