kolkata bengali news

ডেস্ক: কলকাতা বিমানবন্দর থেকে ‘সোনা উদ্ধার’ বিতর্কের জল এবার গড়াল নির্বাচন কমিশন পর্যন্ত। ভোটের আবহে বিষয়টিকে কেন্দ্র করে যেভাবে কলকাতা সহ দিল্লির রাজনৈতিক উত্তাপ বৃদ্ধি পেয়েছে, তা দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে কমিশনের। তাই ওই রাতে বিমানবন্দরে ঠিক কী হয়েছিল জানতে চেয়ে জেলাশাসক অন্তরা আচার্যর কাছে রিপোর্ট তলব করল নির্বাচন কমিশন।

তাঁর স্ত্রীর উপর ওঠা যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবারের সাংবাদিক বৈঠকে দলীয় পরিসরের বাইরে এসে ব্যক্তি অভিষেক হিসেবে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন তিনি। দাবি করেন, রুচিরা তাঁর স্ত্রী বলেই পরিকল্পিতভাবে এই হেনস্থা করা হয়েছে। পাঁচটি মোক্ষম সওয়াল তুলে দিয়ে তিনি বলেন, ২ কেজি কেন, ২ গ্রাম সোনা ছিল সিসিটিভিতে প্রমাণ দেখাতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেবেন তিনি। অভিষেকের এই বিবৃতির পর জল আরও ঘোলা হতে শুরু করে। এই নিয়ে এদিন দিল্লিতে সাংবাদিক বৈঠক ডেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে রীতিমতো তুলোধোনা করে বিজেপি। পদ্ম শিবিরের পক্ষ থেকে রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাসগুপ্ত বলেন, পশ্চিমবঙ্গে সাংবিধানিক সঙ্কট তৈরি করতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুলিশকে দলদাসে পরিণত করেছেন তিনি।

বিতর্কটি নিয়ে অবশ্য আগে আগ্রহ দেখায়নি নির্বাচন কমিশন। কিন্তু পুরো ঘটনাটি যেভাবে এগোচ্ছে, তার প্রভাব নির্বাচনের উপর পড়তে পারে। এমন আশঙ্কাও করা হচ্ছে। সেই কারণে এবার বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করল নির্বাচন কমিশন। এর আগেই অবশ্য গোটা ঘটনার প্রেক্ষিতে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছিল বিজেপি ও তৃণমূল উভয়েই। কিন্তু এই প্রথম জেলাশাসকের কাছে রিপোর্ট চাইল কমিশন। উত্তর ২৪ পরগনার জেলাশাসক অন্তরা আচার্যকে বলা হয়েছে, সেদিন বিমানবন্দরে কী কী হয়েছিল তার পুঙ্খানুপুঙ্খ রিপোর্ট জমা দিতে হবে কমিশনে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here