latest news

নিজস্ব প্রতিনিধি : বেলুন চুপসে যেতেই কি গা ঢাকা দিয়েছেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী? এমনই প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরে। বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশ হয়েছে ২রা মে। তার পর থেকে আর নাগাল পাওয়া যাচ্ছে না বিজেপির এই তরুণ তুর্কি নেতার।

গত বছর ডিসেম্বরের শেষের দিকে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন শুভেন্দু অধিকারী। তার পর থেকে কার্যত তিনিই হয়ে ওঠেন বিজেপির নয়া মুখ। বাগ্মী হিসেবে শুভেন্দুর তুঙ্গ জনপ্রিয়তা বরাবর। তাই শুভেন্দু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই উত্তর থেকে দক্ষিণ সর্বত্রই বক্তৃতা দেওয়ার জন্য ডাক পড়ে তাঁর। শুভেন্দুর উতুঙ্গ জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাতে রাজি হয়ে যান বিজেপি নেতৃত্ব। সেই কারণেই তাঁকে পাঠানো হয় কোচবিহার থেকে কালীঘাট সর্বত্র। শুভেন্দুর গা গরম করা বক্তৃতা মোহিত হয়ে শোনে জনতা। তবে ভোটের ফল বের হলে দেখা যায়, ভরাডুবি হয়েছে শুভেন্দুর নয়া দলের। হইহই করে জিতে গিয়েছে তাঁর পুরানো দল। তিনি নিজেও হাজার দুয়েক ভোটে জয়ী হয়েছেন। তার পরেও প্রকাশ্যে আসেননি একবারও। কেবল দুটি টুইট করে হাত ধুয়ে ফেলেছেন!

শুভেন্দুর এই আচরণে যারপরনাই ক্ষুব্ধ গেরুয়া নেতৃত্বের একাংশ। তাঁদের মতে, শুভেন্দু দলকে আশ্বাস দিয়েছিলেন অবিভক্ত মেদিনীপুর জেলায় বিজেপিকে ৩৫টি আসনেই জয় এনে দেবেন। জেলায় শূন্য হাতেই ফিরতে হবে তৃণমূলকে। তা তো হয়নি, উল্টে আহামরি কিছু রেজাল্টও ওই জেলায় করেনি বিজেপি। তাছাড়া তৃণমূল নেত্রীকে হাফ লাখ ভোটে হারাবেন বলে একাধিক জনসভায় ঘোষণা করেছিলেন শুভেন্দু। তাও হয়নি। সেই কারণেই তিনি অন্তরালে বলে ধারণা ওয়াকিবহাল মহলের।    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here