news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বুধবারই জানা গিয়েছিল হঠাৎ করেই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দের ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট আনফলো করেছে হোয়াইট হাউজ। তারপর থেকেই শুরু হয় রাজনৈতিক কানাঘুষো। অনেকেই ভারত-মার্কিন সম্পর্কের অবনতি হিসেবে এটিকে দেখছিলেন। কিন্তু বৃহস্পতিবার এর আসল কারণ নিজেই জানাল হোয়াইট হাউজ।

হোয়াইট হাউজের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে সাধারণত যেসব দেশে মার্কিন প্রেসিডেন্ট সফরে যান, সেই সব দেশেরই রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট ফলো করে হোয়াইট হাউজ। যাতে তাদের কোনও ট্যুইট রিট্যুইট করতে পারা যায়। পরে তা আবার আনফলো করে দেওয়া হয়। গত ফেব্রুয়ারি মাসে ভারতে এসেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

প্রসঙ্গত, এই সপ্তাহের শুরুতেই হোয়াইট হাউজের তরফ থেকে নরেন্দ্র মোদী, প্রধানমন্ত্রীর দফতর, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দ, আমেরিকায় ভারতীয় দূতাবাস, ভারতে আমেরিকার দূতাবাস ও ভারতে আমেরিকার হাই কমিশনার কেন জাস্টারের ট্যুইটার প্রোফাইল আনফলো করে দেওয়া হয়।

এতে রাজনৈতিক চাপান উতর বাড়ে। সম্প্রতি, ধর্মীয় স্বাধীনতা সংক্রান্ত মার্কিন কমিশন ভারতে মুসলমানদের ধর্মীয় স্বাধীনতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। অনেক বিশেষজ্ঞই অনুমান করেন, চলতি দ্বন্দ্বের প্রেক্ষিতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে। কিছুদিন আগে করোনা চিকিৎসার জন্য হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ নিয়ে এক প্রস্থ বিভেদ বাঁধে ভারত এবং আমেরিকার। খোদ বিরোধী কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীও এতে অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here