মহানগর ডেস্কঃ সচেতনতার অভাব এবং পরিস্থিতি হালকাভাবে নেওয়ার খেসারত দিচ্ছে ভারত। সম্প্রতি এমনটাই জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। অতিমারি আবহে রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় সমাবেশের প্রয়োজনীয়তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে ‘হু’।

‘হু’-এর রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘গত অক্টোবর মাসে ভারতে করোনার নতুন প্রজাতি বি.১.৬১৭-এর খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল। করোনার নতুন প্রজাতি তরান্বিত অতিমারির প্রভাব তরান্বিত করতে পারে। তবে এরই মধ্যে গত কয়েক মাস ধরে ভারতে নানান ধর্মীয় ও সামাজিক সমাবেশ আয়োজন করা হয়েছিল। বিপুল জনসমাগম হয়েছিল সেই সমস্ত সমাবেশে। এর ফলে করোনা সংক্রমণ বাড়তেই পারে দ্রুত বেগে।’

মানুষেরা  মৃত্যু মিছিলের মাঝে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে মিটিং, মিছিল কিংবা নির্বাচন আয়োজন করা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল একাধিকবার। যদিও অতিমারির থেকেও নির্বাচনকেই গুরুত্ব দিয়েছে প্রশাসন। বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেন, করোনা আবহে নির্বাচন বন্ধ রাখা যেত না। ভারতের মতো গণতান্ত্রিক দেশে এমনটা কখনও সম্ভব নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here