bengali news

Highlights

  • সিএএ-র পর নাগরিকত্ব বাতিল করার জন্য এবার কেন্দ্রীয় সরকার আনতে চলেছে NRC
  • মোদী-শাহকে দেশের সবচেয়ে বড় মিথ্যুক বলে সুর চড়ালেন ছত্তিসগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেল
  • কে সত্যি বলছেন, আর কে মিথ্যা বলছেন?

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সিএএ-কে কেন্দ্র করে উত্তাল গোটা দেশ। সেই আবহেই দেশবাসীর আশঙ্কা, সিএএ-র পর নাগরিকত্ব বাতিল করার জন্য এবার কেন্দ্রীয় সরকার আনতে চলেছে এনআরসি। যদিও তেমন কোনও সম্ভাবনা নেই বলে ইতিমধ্যেই স্পষ্ট করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সম্প্রতি এক জনসভায় দেশবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, এনআরসি-র বিষয়ে কোনও ভাবনাচিন্তাই করেনি সরকার। এমন পরিস্থিতির মাঝেই এবার মোদী-শাহকে দেশের সবচেয়ে বড় মিথ্যুক বলে সুর চড়ালেন ছত্তিসগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেল।

শুক্রবার ছত্তিসগড়ের এক জনসভায় দাঁড়িয়ে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে উদ্দেশ্য করে তার দাবি, দু’জন দুই রকম কথা বলছেন। ফলে কে সত্যি বলছে আর কে মিথ্যা বলছে সেটা বোঝাই তো সমস্যার হয়ে উঠেছে। তাঁর কথায়, ‘আজ গোটা দেশ যে ইস্যুতে সরব হয়েছে সেই প্রসঙ্গে অমিত শাহ বলছেন, ক্রনোলজি বুঝুন। প্রথমে সিএএ আসবে তারপর এনআরসি ও এনপিআর। অন্যদিকে নরেন্দ্র মোদী বলছেন এনআরসি বিষয়ে কোনও আলোচনা হয়নি। এমন কিছু নিয়ে ভাবছি না আমরা। তাহলে প্রশ্নটা এটাই, কে সত্যি বলছেন, আর কে মিথ্যা বলছেন?’

উল্লেখ্য, রাষ্ট্রপতির সাক্ষরের সঙ্গে সঙ্গে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের রূপ পাওয়ার পর এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অমিত শাহের দাবি ছিল, ‘গোটাটাই একটা প্রক্রিয়া। প্রথমে সিএএ আসবে তারপর আসবে এনআরসি। ক্রনোলজি বুঝুন।’ এরপর অবশ্য সিএএ আইনকে কেন্দ্র করে গোটা দেশ উত্তাল হওয়ার পর নিজের বক্তব্য থেকে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে যায় সরকার। দিল্লির এক জনসভায় জোর গলায় মোদী জানান, ‘সিএএ শুধু নাগরিকত্ব দেওয়ার আইন। কারও নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়া হবে না। এবং এনআরসির বিষয়ে সরকার কোনও রকম আলোচনা করেনি।’ এরপর অবশ্য মোদীর সুরে সুর মিলিয়ে অমিত শাহও জানিয়ে দেন এনআরসির বিষয়ে কোনও রকম আলোচনা হয়নি তাঁদের মধ্যে। সেই ইস্যুকে তুলে ধরেই এবার বিজেপি সরকারকে পরোক্ষে মিথ্যাবাদী বললেন বাঘেল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here