মহানগর ওয়েবডেস্ক: জি-৭ সামিটের সদস্য হল কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইটালি, জাপান, ব্রিটেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন। কিন্তু এই সামিটে যোগ দিতে গিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। সেখানে আবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে তাঁর বৈঠক হওয়ার কথা। বিশেষজ্ঞদের মতে, জম্মু-কাশ্মীর ইস্যু নিয়েই আলোচনা হবে দু’জনের কারণ এক আগে ট্রাম্প এই ইস্যুতে মধ্যস্থতা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু কথা হল, জি-৭ সামিটে ভারতের থাকারই কথা নয়! তাহলে সেখানে কীভাবে গেলেন নরেন্দ্র মোদী?

একেই হয়তো সখ্যতা, বন্ধুত্ব, সম্পর্ক। সদস্য না হওয়া ভারত জি-৭ সামিটে শুধুমাত্র আমন্ত্রণ পেয়েছে বন্ধুত্বের খাতিরে। এবারের ৪৫ তম জি-৭ সামিট অনুষ্টিত হয়েছে ফ্রান্সে। প্রেসিডেন্ট ইমান্যুয়েল মাক্রোর ব্যক্তিগত আমন্ত্রণেই নরেন্দ্র মোদী এই সামিটে যোগ দিয়েছেন। সামিটে যোগ দেওয়ার জন্য তাঁকে স্বয়ং আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মাক্রো। ভারতের পাশপাশি অতিথি হিসেবে যোগ দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া, রাওয়ান্ডা, চিলি, ইজিপ্ট, সেনেগাল, দক্ষিণ আফ্রিকা ও স্পেন।

ফ্রান্স, ইজরায়েল, সৌদি আরব প্রভৃতি দেশের সঙ্গে ভারতের সখ্যতা ঠিক কোন মাত্রায় পৌঁছেছে তা বিগত কিছু বছরের তথ্য ঘাঁটলেই স্পষ্ট হয়ে যাবে। ভারতে পুলওয়ামা হামলার পর পাকিস্তানকে বিশ্বমঞ্চে কোণঠাসা করতে ভারতের পাশে যেভাবে এই দেশগুলি দাঁড়িয়েছে তার থেকে প্রধানমন্ত্রী মোদীর বিদেশ ভ্রমণের যথার্থতা প্রকাশ পায়। আমেরিকা, ফ্রান্স, ইজরায়েলের মতো দেশের সঙ্গে যে সম্পর্ক তৈরি হয়েছে তা নিঃসন্দেহে ভারতকে বিশ্ব মানচিত্রে এক অন্য জায়গায় স্থাপন করবে। জি-৭ সামিটে তাঁর ব্যক্তিগতভাবে আমন্ত্রণ পাওয়া ঠুকরো উদাহরণ মাত্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here