kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি : হুগলির বলাগড়ে এবার তৃণমূলের তুরুপের তাস মনোরঞ্জন ব্যাপারী। দলিত সাহিত্য অ্যাকাডেমীর প্রধান মনোরঞ্জনকে প্রার্থী করে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। এদিন বলাগড়ে মনোরঞ্জনের হয়ে প্রচার করেন মমতা। কেন মনোরঞ্জনকে প্রার্থী করা হয়েছে, দেন তার ব্যাখ্যাও।  চতুর্থ দফায় শনিবার নির্বাচন হবে বলাগড়ে। তার আগে এদিনই ছিল প্রচারের শেষ দিন। এদিনই কেন মনোরঞ্জনকে প্রার্থী করা হয়েছে, তার কারণ ব্যাখ্যা করেন মমতা।

স্থানীয় সূত্রে খবর, অতি সাধারণ এক পরিবার থেকে উঠে আসা মনোরঞ্জন নকশাল রাজনীতি করতে গিয়ে জেল খেটেছেন। জেলে থাকাকালীন বেশ কিছু বই লেখেন। জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর রিক্সা চালাতে শুরু করেন মনোরঞ্জন। এই রিক্সা চালাতে চালাতেই চোখে পড়ে যান বিশিষ্ট লেখিকা মহাশ্বেতা দেবীর। তার পরেরটা তো ইতিহাস। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনোরঞ্জনকে একটি লাইব্রেরিতে চাকরি দেন। এবার তাঁকে প্রার্থী করে দেন তৃণমূল নেত্রী। বলাগড়ের সভায় মমতা বলেন, মনোরঞ্জন দলিত সাহিত্য অ্যাকাডেমির প্রধান। তিনি জিতলে দলিতদের আরও নানা সমস্যা তুলে ধরবেন তাঁর বিভিন্ন বইয়ে। দলিতদের নিয়ে তিনি অনেক কাজ করবেন বলেও আশ্বাস দেন মমতা।

তৃণমূল সূত্রে খবর, এখনও নিতান্তই সাদামাটা জীবনযাপন করেন মনোরঞ্জন। মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়েছেন রিক্সা চালিয়ে। রিক্সা মনোরঞ্জন এখনও চালান। দলিত সাহিত্য অ্যাকাডেমির প্রধান হয়েও নিজেকে এতটুকু বদলাননি। তাঁর জীবনের নানা ওঠাপড়ার সাক্ষী তিন চাকার সাইকেল রিক্সাটাই। তাই সেটা চালিয়েই এসডিও অফিসে গিয়ে মনোরঞ্জন জমা দেন মনোনয়নপত্র। তিনি যে মাটিতেই আছেন, তিনি যে মা-মাটি-মানুষের প্রতিনিধি, সেটা বোঝাতেই মনোরঞ্জনের রিক্সাযাত্রা, বলছেন ওয়াকিবহাল মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here