নিজস্ব প্রতিবেদক, মালদা: কয়েকদিন ধরেই সন্দেহ হচ্ছিল, অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়েছেন স্বামী। অবশেষে মনে সাহস জুগিয়ে প্রতিবাদও করতে গিয়েছিলেন গৃহ বধু। কিন্তু পরিণতি হল ভয়ঙ্কর। প্রতিবাদ করায় স্ত্রীর যৌনাঙ্গে বাঁশ ঢুকিয়ে খুনের অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। প্রমাণ লোপাট করতে খুনের পর ফাঁসেও ঝুলিয়ে দেওয়ার মারাত্মক অভিযোগ উঠেছে।

চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে মালদার পুকুরিয়া থানার ছরকামারি গ্রামে। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত গা-ঢাকা দিয়েছে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুকুরিয়া থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় ঐ গ্রামের বাসিন্দা পেশায় লরি চালক গেদু শেখের সঙ্গে বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই প্রতিবেশী সাহানুর বেওয়া নামে এক মহিলার অবৈধ সম্পর্ক তৈরি হয়। তা মেনে নিতে পারছিলেন না গেদু শেখের স্ত্রী মিনু বিবি। এই নিয়ে তাদের স্বামী স্ত্রীর বিবাদ ছিল নিত্যদিনের সঙ্গী। অভিযোগ, বুধবার রাতে মিনু বিবির সঙ্গে এ নিয়ে স্বামী গেদু শেখের বচসা শুরু হয়। স্ত্রীকে বেধরক মারধর করে গেদু। এরপর স্ত্রীর যৌনাঙ্গে বাড়িতে থাকা বাঁশ ঢুকিয়ে খুন করে স্বামী ও তাঁর প্রেমিকা।

এই নৃশংস কাজ করেও খান্ত থাকেনি গেদু ও তাঁর প্রেমিকা। প্রমাণ লোপাটের জন্য মিনুর মৃতদেহ ঘরে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। ঘরের মেঝেতে রক্ত পরে থাকতে দেখা যায়। আজ সকালে বিষয়টি গ্রামবাসীদের নজরে আসে। মেয়ের পরিবার ও গ্রামবাসীদের অভিযোগের ভিত্তিতেই তদন্ত নেমেছে পুকুরিয়া থানার পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই পলাতক গেদু ও তাঁর প্রেমিকা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here