kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, উত্তর দিনাজপুর: বারবার ‘ডাইনি’ কুসংস্কার নিয়ে করা হয়েছে সচেতনতা প্রচার। নেওয়া হয়েছে কড়া পদক্ষেপ। তবুও রাজ্যে বারবার ঘটে চলেছে ‘ডাইনি’ সন্দেহে নিগ্রহ। আবারও প্রকাশ্যে এল সমাজের নগ্ন রূপ। ঘটনা উত্তর দিনাজপুরের। ডাইনি সন্দেহে হত্যার নিদান দিয়েছে মহল্লা। চেষ্টাও করা হয়েছে। তাই আতঙ্কে ঘর ছাড়া রায়গঞ্জের শীতগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েত আদিবাসী পরিবার। নিরুপায় দম্পতি দারস্থ হয়েছে রায়গঞ্জ থানার।

বুধবার রাতে রায়গঞ্জ থানার শীতগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের ইকোর গ্রামে সামিয়া হাঁসদা ও মন্টু হেমব্রম রাতের খাওয়ার খেয়ে ঘুমতে যাওয়ার কিছু পরেই বেশ কয়েকজন মানুষের হাঁটা চলার শব্দ শুনতে পান। কান পাততেই শোনেন, সামিয়াকে হত্যার জন্য জড়ো হয়েছে গ্রামের কিছু আদিবাসী মানুষজন। বেগতিক দেখে চুপিসাড়ে ঘর থেকে বেরিয়ে গা ঢাকা দেন সামিয়া ও মন্টু। বুধবার দিনের বেলাতেই এলাকার কিছু মানুষ সামিয়াকে জানিয়েছিল, সমাজের কিছু মাতব্বর গঙ্গারামপুর থেকে গণনা করে সামিয়াকে এলাকার ডাইনি বলে চিহ্নিত করেছে। আর তারপরেই রাতের অন্ধকারে সামিয়ার বাড়ির সামনে আদিবাসী মানুষরা জড়ো হওয়ার ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন সামিয়া ও মন্টু। সারারাত ঘর ছাড়া হয়ে গ্রামের পাশেই লুকিয়ে থাকেন তাঁরা। দিনের আলো ফুটতেই রায়গঞ্জ থানার পুলিশের দারস্থ হয় ওই অসহায় পরিবার৷ লিখিত অভিযোগ জানায় রায়গঞ্জ থানায়। সামিয়ারা জানিয়েছেন, এর আগেও তাঁদের ডাইনি অপবাদ দেওয়া হয়েছিল। সেই সময় পুলিশ গিয়ে আলোচনার মাধ্যমে মীমাংসা করে দেয়। এবারও পুলিশি সহায়তার আশ্বাস পেয়েছেন দম্পতি। বাড়ি ফেরার অপেক্ষায় সামিয়া- মন্টু। থানায় আবেদন জানিয়েছে নিরাপত্তার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here