ডেস্ক: দীর্ঘ সাওয়াল জবাবের পর অবশেষে রথ যাত্রায় কিছুটা হলেও স্বস্তির হাওয়া ফিরল গেরুয়া শিবিরে। রথযাত্রা মামলায় প্রশাসনের কোর্টেই বল ফেলে দিল হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। রথযাত্রা হবে, কি হবে না? তা নিয়ে যে বিশাল প্রশ্ন চিহ্ন তৈরি হয়েছিল তাতে যবনিকা টানল আদালত। আদালতের রায়ে এটা স্পষ্ট রথযাত্রা হবে তবে কবে হবে আলোচনার মাধ্যমে তার তারিখ ঠিক করবে রাজ্যের প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের সিঙ্গেল ডিভিশনের রায়ে বিজেপির আবেদন খারিজ হওয়ার পাশাপাশি, ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত পিছিয়ে যায় রথযাত্রার শুনানি। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করে বিজেপি। যার শুনানিতে এদিন বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দারের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দেয়, রাজ্যের তিন সদস্যের প্রতিনিধি মুখ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব ও ডিজির সঙ্গে আলোচনা করবে বিজেপি। প্রশাসনকে সেই আলোচনা করতে হবে আগামী ১২ ডিসেম্বরের মধ্যে। এবং ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে রথযাত্রার চূড়ান্ত দিনক্ষণ ঠিক করে বিজেপিকে জানিয়ে দেবে রাজ্য প্রশাসন। এবং কবে দিন ঠিক হল, তা জানাতে হবে আদালতকেও। এদিন আদালতের এই রায়ে বিজেপি শিবিরে স্বস্তির হাওয়া বইলেও, রাজ্য কবে অনুমতি দেবে তা নিয়ে কিছুটা হলেও চাপে বিজেপি।

শুক্রবার শুরু থেকেই আদালতে রথযাত্রা ইসুতে এগিয়ে ছিল বিজেপি। শুনানিতে রাজ্য সরকারকে প্রথমেই প্রশ্ন করা হয়, যেখানে বিজেপির তরফে দীর্ঘদিন আগে আবেদন করা হয়েছিল এই রথযাত্রার, সেখানে টানা একমাসের এই শীতঘুম কেন প্রশাসনের? ৫ নভেম্বর থেকে ৬ ডিসেম্বর টানা এতদিনের মধ্যে কেন কোনও উত্তর দেয়নি প্রশাসন। এই র‍্যালি হবে কি না? দীর্ঘ এক মাসের মধ্যে তাতো একটা চিঠি লিখেও জানাতে পারত তারা। রথযাত্রার ফলে কোথায় কি সমস্যা হবে তা স্পষ্ট করে জানাতে পারত প্রশাসন। অন্তত ছোট করেও র‍্যালি করার অনুমতি দিতে পারত। শুধুমাত্র গোলমালের আশঙ্কায় কোনও মিছিল আটকাতে পারে না। শুধুমাত্র রং দেখে নয়, গোটা পরিস্থিতি বিচার করে সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয় রাজ্য প্রশাসনকে। বেলা যত গড়াতে থাকে রথযাত্রায় বিজেপির পাল্লা ভারি হতে থাকে ততই। শেষে হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চের রায় খারিজ করে ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দেয় প্রশাসন ও বিজেপি আলোচনার মাধ্যমেই আগামি শুক্রবারের মধ্যেই সিদ্ধান্ত নেবে কবে হবে রথযাত্রা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here