ফের ডেঙ্গুর ভ্রুকুটি রাজ্যে! অশোকনগরে মৃত্যু গৃহবধূর, হচ্ছে না মশা নিধন অভিযান

0
156

নিজস্ব প্রতিবেদক, হাবরা: ফের ডেঙ্গুর প্রকোপ রাজ্যে! রবিবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলার অশোকনগর-কল্যাণগড় পুর এলাকার এক গৃহবধূ মৃত্যু হল। রীতা বালা নামে ওই গৃহবধূর রক্ত পরীক্ষার রিপোর্টে ডেঙ্গুর জীবাণু পাওয়া গিয়েছে বলে তাঁর পরিবারের দাবি। এছাড়া আরও বেশ কিছু মানুষ জ্বরে ভুগছেন। যদিও তাঁরা সকলে ডেঙ্গু আক্রান্ত কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়। কিন্তু রীতা বালার মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে। এর জন্য স্থানীয় পুর-প্রশাসনকেই দায়ী করছে এলাকাবাসী। তাদের অভিযোগ, এলাকায় কোনও সাফাই অভিযান হয় না। ফলে মশার উপদ্রপ অত্যন্ত বেশি। যদিও এলাকাবাসীর অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন অশোকনগর-কল্যাণগড় পুরসভার প্রধান প্রবোধ সরকার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অশোকনগরের বনবনিয়া এলাকার বাসিন্দা রীতা বালা গত কয়েকদিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন। গত বৃহস্পতিবার তাঁকে হাবরা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। কিন্তু সেখানে তিনদিন ভর্তি থাকার পরেও তাঁর জ্বর কমেনি। বরং অবস্থার অবনতি হতে থাকে। তারপর শনিবার গভীর রাতে ওই গৃহবধূকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বারাসত হাসপাতালে পাঠানো হয়। এদিন সকালে সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। যদিও তাঁর মৃত্যুর শংসাপত্রে ডেঙ্গুর কারণে মৃত্যুর কথা নেই। তবে তাঁর পরিবারের দাবি, হাবরা হাসপাতালে করা রীতার রক্ত পরীক্ষার রিপোর্টে তাঁর দেহে ডেঙ্গুর জীবাণু মিলেছে বলে রীতাদেবীর পরিবার জানিয়েছে। ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ চরমে ওঠে। কেননা এলাকায় আরও কয়েকজন রীতাদেবীর মতোই গত কয়েকদিন ধরে টানা জ্বরে ভুগছেন। তাঁরাও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের আশঙ্কা। এই ঘটনায় অশোকনগর-কল্যাণগড় পুর-প্রশাসনকেই দায়ী করেছেন তাঁরা।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, অশোকনগর-কল্যাণগড় পুর এলাকার ২ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা ছিলেন রীতা বালা। ২ এবং পার্শ্ববর্তী ২৩ নম্বর ওয়ার্ডে কোনোরকম সাফাই অভিযান হয় না। ইদানীংকালে পুরসভার তরফে মশা নিধন বা কোনও ধরনের সাফাই অভিযান করা হয়নি। তার ফলেই এলাকার বহু মানুষ জ্বরে ভুগছে বলে তাঁরা জানিয়েছেন। যদিও এলাকাবাসীর অভিযোগ অস্বীকার করে পুরপ্রধান প্রবোধ সরকারের দাবি, নিয়মিত সাফাই অভিযান চলছে। তবে আগামী দিনে তিনি ২ এবং ২৩ নম্বর ওয়ার্ড পরিদর্শনে যাবেন এবং সাফাই অভিযান পর্যবেক্ষণ করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here