মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের দাপট। অর্ধেক বিশ্ব লক ডাউনে। বন্ধ সবধরনের ব্যবসা বাণিজ্য। করোনার প্রত্যক্ষ প্রভাব যেমন সাধারণ মানুষের মধ্যে পড়েছে, পরোক্ষ প্রভাব কিন্তু আরও ভয়াবহ ভাবে জাঁকিয়ে বসেছে। ঝিমিয়ে পড়েছে অর্থনীতি। মানুষের বন্ধ উপার্জন। ফলে করোনা জ্বালার থেকেও মানুষ বেশি অসহায় খিদের জ্বালায়।

করোনার প্রভাব সারা বিশ্বের মতো আফ্রিকান দেশগুলোতেও ব্যাপকভাবে পড়েছে। কেনিয়াতে লক ডাউন সেইভাবে না হলেও মানুষ সোশ্যাল ডিস্টানসিং মানছেন। আর এতেই কর্মহারা হয়ে পড়েছেন প্রচুর দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ। এমনই অসহায় হয়ে পড়েছেন আট সন্তানের মা পেনিনা বাহাতি কিতাসো। ঘরে একটুকুও খাবার না থাকায় ক্ষুধার্ত সন্তানদের মন ভোলাতে পাথর রান্নার ছলনা করতে হচ্ছে তাঁকে।

বিবিসি নিউজ অনুযায়ী, পেনিনা থাকেন মোম্বাসায়। নিরক্ষর পেনিনা ধোপানীর কাজ করেন। কিন্তু সোশ্যাল ডিস্টানসিংয়ের কারণে বর্তমানে তাঁর উপার্জন শূন্য। আর সেই কারণেই ক্ষুধার্ত শিশুদের মন ভোলাতে পাথর রান্নার অভিনয় করতে হচ্ছে তাঁকে।

এই ঘটনাটি নজরে আসে পেনিনা পড়শি পিসকা মোমানভির। তিনি গোটা বিষয় স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে জানানোর পাশাপাশি পেনিনাকে একটি ব্যাঙ্ক একাউন্ট খুলে দেন। তাঁর অসহায় অবস্থার কথা স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত হতেই সাধারণ মানুষ তাঁর সাহায্যে এগিয়ে আসেন। পেনিনার সাহায্য করতে তাঁর ব্যাঙ্কে প্রচুর অনুদান জমা পরে।

পেনিনা একজন বিধবা। গত বছর দুষ্কৃতীদের হাতে তাঁর স্বামীর মৃত্যু হয়। তারপর থেকে সন্তানদের নিয়ে দুই কামরার বাড়িতে থাকেন পেনিনা। বাড়িতে জল বা বিদ্যুতের সংযোগও নেই। হঠাৎ করে সবার সাহায্য পেয়ে অভিভূত তিনি। ‘আমি কখনও ভাবিনি কেনিয়ার সকলে আমায় এইরকম সাহায্য করবেন। সারা দেশ থেকে আমায় অনেকে ফোন করছে। আমি সকলের কাছে কৃতজ্ঞ’, বলেন পেনিনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here