নিজস্ব প্রতিনিধি, ভাঙড় : “মেয়ে হয়ে রক্তদান করবে! এ তো পুরুষমানুষদের কাজ”। হাজার ছুঁৎমার্গ থাকলেও কোনও বাধাই দমাতে পারেনি নাজিরা খাতুন, রাবিয়া খাতুনদের। রবিবার ভাঙড় ২ ব্লকের চড়িশ্বর গ্রামে নব উজ্জ্বল সংঘের পরিচালনায় রক্তদান শিবিরের রক্ত দিয়ে গিয়েছেন ৫৫ জন। গ্রামের মহিলাদের আয়োজিত এই শিবিরে রক্ত দিয়েছেন ১৫০ জন পুরুষও।

আজও রক্তদান নিয়ে অনেক মানুষের মনেই দ্বন্দ্ব রয়ে গিয়েছে। অনেকেই মনে করেন, মেয়েদের রক্তদান করা উচিত নয়। তার উপর সংখ্যালঘু ঘরের মেয়েরা রক্তদান করবে? সমাজ কি বলবে। যদিও আজকাল সামাজিক সচেতনতা ক্রমে বাড়ছে। কেউ কেউ ছেলের অন্নপ্রাশনে, মেয়ের বিয়ের সামাজিক অনুষ্ঠানে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করছেন।

ভাঙড়ের এই রক্ত দান শিবিরে রক্ত দিয়ে নাজিরা খাতুন বলেন, ‘‘ছেলেরা বিভিন্ন শিবিরে গিয়ে রক্ত দেয়। আমরা দেখতাম। কিন্তু এ বার রক্ত দিতে পেরে ভাল লাগছে।’’ একই কথা বলেন রাবিয়া খাতুন। তাঁর কথায়, ‘‘নিজে রক্ত দিয়ে জীবন সার্থক হল। আমি চাই গ্রামের মহিলারা সমস্ত রক্তদান শিবিরে যোগ দিক।’’ তাতে রক্তের জোগান বাড়বে। পাশাপাশি কারও পরিবারেরই কোনও সদস্যের রক্তের অভাবে অকালে প্রাণ যাবে না বলে তিনি মনে করেন।

এ দিন সকাল ১০টা থেকে দুপুর ৩টে পর্যন্ত শিবির চলে। রক্তদাতাদের পুষ্টিকর খাদ্য খাওয়ানো হয়। এ দিনের শিবিরের উদ্বোধন করেন ভাঙড়ের প্রাক্তন বিধায়ক তথা পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি আরাবুল ইসলাম সহ ভাঙড় ২ নং ব্লক সভাপতি অহিদুল ইসলাম এবং যুব নেতা অহেদালি শেখ। উপস্থিত ছিলেন ছাত্র নেতা হাকিমুল ইসলাম।।এই শিবিরের উদ্যোগতা ক্লাবের কর্মকর্তা আজিজুল ইসলাম বলেন, মহিলা-পুরুষ একযোগে রক্ত দান করাই আমাদের রক্তদান শিবির সার্থক হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here