মহানগর ওয়েবডেস্ক: ভারতের হয়ে এবার গলা ফাটালেন ইংল্যান্ডের রাজপুত্র প্রিন্স চার্লস। ইংল্যান্ডে বসে ভার্চুয়ালি ইন্ডিয়া গ্লোবাল উইকে কথা বলতে গিয়ে তিনি ভারতীয়দের কঠোর জীবনযাত্রার প্রশংসা করেন। রাজপুত্র আরও আবেদন করেন, বর্তমান সংকটের সময়ে মানুষের উচিত বিশ্বকে পুনর্গঠিত করার দিকে মন দেওয়া। অর্থনীতির কেন্দ্রবিন্দুতে যদি ‘মানুষ’ এবং ‘পৃথিবী’কে নিয়ে আসা যায় তবেই এটা সম্ভব হবে বলে জানান তিনি।

শুক্রবার এই সামিটে অংশ নিয়ে প্রিন্স চার্লস বলেন, ‘বর্তমান সংকটের সময় যেভাবে আমরা পুনর্গঠন করছি, এতে বিশ্বব্যাপী মান সৃষ্টির কেন্দ্রবিন্দুতে মানুষ এবং পৃথিবীকে এগিয়ে রাখার অতুলনীয় সুযোগ রয়েছে আমাদের কাছে। এর দ্বারা টেকসই বাজারের দিকে আমরা অগ্রসর হতে পারব যা প্রাকৃতিক, সামাজিক, শারীরিক ও মানবশক্তিকে মূলধন হিসেবে ভারসাম্যের সহিত ব্যবহার করবে ও আমাদের দীর্ঘমেয়াদি ফলাফল দেবে। এই চার ধরনের মূলধনের বিনিয়োগগুলি সর্বত্র, বিশেষত গরিব মানুষের জন্য স্থায়ী উপায়ে জীবনযাত্রার মান বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করবে।’

সুরক্ষিত জীবনযাত্রার সুফল নিয়েও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জানান লন্ডনের রাজপুত্তুর। ভারতীয় সংস্কৃতির প্রাচীন অভ্যাস যোগাসনের প্রসঙ্গ টেনে প্রিন্স বলেন, ‘নিজেদের টেনে তোলার এই সময়ে গোটা বিশ্ব যাতে ভারতের থেকে এই প্রাচীন জ্ঞানগুলি গ্রহণ করে তা অত্যন্ত জরুরি।’

প্রিন্স চার্লসের কথায়, ‘ভারত বরাবরই এটা বোঝে। এখানকার দর্শন এবং মূল্যবোধগুলি দীর্ঘমেয়াদি ও সুরক্ষিত জীবনযাপন এবং মানবতা ও প্রকৃতির মধ্যে একটি সুসম্পর্ক স্থাপনের উপর জোর দেয়। উদাহরণস্বরূপ, ‘অপরিগ্রহ’। এটা এমন একপ্রকার বৈদিক নীতি আমাদের জীবনের নির্দিষ্ট পর্যায়ে কেবল প্রয়োজনীয় যা কিছু সেটুকু রাখার জন্য উত্সাহ দেয়। সম্ভবত আমরা সকলেই প্রাচীন জ্ঞানের এহেন উদাহরণ থেকে শিখতে পারি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here