news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: একটি বিমান আকাশে উড়বে, তাতে লাগবে না কোনও জীবাশ্ম জ্বালানি! সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক বিমানের কল্পনা কিছুকাল আগেও বিজ্ঞানীদের কাছে অসম্ভব ছিল। কিন্তু সেই সম্ভাবনাই এবার বাস্তবে পরিণত হল। রচিত হল ইতিহাস। আকাশে সফল ভাবে প্রথম উড়ান সম্পন্ন করল বিশ্বের সবচেয়ে বড় সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক বিমান।

ওই বিমানটি যৌথভাবে তৈরি করেছে ম্যাগনিক্স ও এরোটেক নামে দুটি কোম্পানি। আজ প্রথম উড়ানে এটি প্রায় ৩০ মিনিট আকাশে ছিল। বিমানটিতে নয়জন যাত্রী সফর করতে সক্ষম। বিমানটির নাম দেওয়া হয়েছে ই-ক্যারাভ্যান। বিমানটির ইঞ্জিন ক্ষমতা ৭৫০ হর্সপাওয়ার।

ম্যাগনিক্স কোম্পানি বৈদ্যুতিক বিমানের জন্য বিশেষ ইঞ্জিন সেই ২০০৯ সাল থেকে বানিয়ে আসছে। এখনও পর্যন্ত তারা বহু ইলেকট্রিক ইঞ্জিন বানিয়েছে। তবে তাদের বানানো সবচেয়ে শক্তিশালী ইলেকট্রিক ইঞ্জিন ম্যাগনি৫০০। এই ইঞ্জিনটিই এই বিমানে ব্যবহার করা হয়েছে। অন্যদিকে, এরোটেক কোম্পানির ইঞ্জিনিয়াররা এই বিমানের নকশা তৈরি করেছেন এবং বিমানটির প্রথম উড়ানও হয়েছে এই এরোটেকের তত্ত্বাবধানেই।

বহুকাল ধরেই বৈদ্যুতিক বিমান তৈরির উপর জোর দিয়ে এসেছেন বিজ্ঞানীরা। কিন্তু যাত্রীবাহী বড় বিমান তাও আবার সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক, তৈরি করা মোটেও সহজ ছিল না। এত ক্ষমতাশালী বৈদ্যুতিক ইঞ্জিন তৈরি করার মতো টেকনোলজিই বিজ্ঞানীদের কাছে নেই। তবে এই দুই কোম্পানি এভিয়েশন ইন্ডাস্ট্রিতে বিশাল বিপ্লব এনে দিল। বৈদ্যুতিক বিমান ব্যবহার করলে যেমন জীবাশ্ম জ্বালানি বাঁচবে, পরিবেশ দূষণ কম হবে, তেমনই যাতায়াতের খরচও কমবে। ভবিষ্যতের পথে তাই একটা বড় পদক্ষেপ এই ই-ক্যারাভ্যান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here