ডেস্ক: মেদিনীপুরে সভা করে কৃষকদের জন্য স্বস্তির বার্তা দিয়ে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু মধ্যবিত্ত এবং নিম্নবিত্ত জনগণের রক্তচাপ বাড়িয়ে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে অস্বাভাবিক হারে। তাও আবার প্রধানমন্ত্রী মোদীর রাজত্বকালেই। অর্থাৎ বিগত চার বছরে। জানা গিয়েছে, চলতি বছরের জুন মাসে পাইকারি দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির দর ছিল ৫.৭৭ শতাংশ। কিন্তু এর একমাস আগেই অর্থাৎ মে মাসে পাইকারি বৃদ্ধির দর ছিল ৪.৪৩ শতাংশ। অথচ এই দরই গতবছর জুন মাসে ০.৯০ শতাংশ ছিল।

প্রাথমিকভাবে এই সময়ে ৪.৯৩ শতাংশ বৃদ্ধির হার থাকবে বলে মনে হলেও মে মাসেই তা গত ১৫ মাসের রেকর্ড ভেঙে ৪.৪৩ শতাংশে পৌঁছে যায়। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসগুলির পাশাপাশি পেট্রোলজাত প্লাস্টিকের দ্রব্যমূল্য ২ ও ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও চলতি মাসে খাবার-দাবার জিনিসেরও দাম বারে। পেট ভরানোর বস্তুর পাইকারি মূল্য বাজারে ১.১২ শতাংশ থেকে বেড়ে ১.৫৬ শতাংশ হয়ে যায়।

সবমিলিয়ে দ্রব্যমূল্য কমার কোনও আশঙ্কা দেখা যাচ্ছে না, উল্টে বেড়েই চলেছে তা। প্রধানমন্ত্রী কৃষক বা কংগ্রেসকে নিয়ে প্রচুর শব্দ খরচ করলেও পেট্রোপণ্যের মূল্য বা সাধারণ জিনিসের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কিছুই বলছেন না তিনি। সাধারণ জিনিস দাম যে অস্বাভাবিক হারে এখনও বেড়ে চলেছে সে প্রমাণই পাওয়া গেল এদিনের রিপোর্টেও।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here