নিজস্ব প্রতিবেদক, কৃষ্ণনগর: অসুস্থ হয়ে চিকিত্সার জন্য হাসপাতালে এসেছিলেন। কিন্তু হাসপাতালে এসে সুস্থ হয়ে ওঠা দূর অস্ত, চিকিত্সকদের ভুলে জীবন সংশয় দেখা দিয়েছে অন্তঃসত্ত্বা জেসমিনা মণ্ডলের। ‘ও পজিটিভ’ রক্তের বদলে তাঁকে দেওয়া হয়েছে ‘এ পজিটিভ’ রক্ত। ভয়ঙ্কর এই ঘটনাটি ঘটেছে শক্তিনগর জেলা হাসপাতলে। এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ জেসমিনা মণ্ডলের স্বামী ইমরান মল্লিক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নদিয়ার চাপড়া থানার এলেম নগরের বাসিন্দা জেসমিনা মণ্ডল গত মঙ্গলবার হঠাত্ই অসুস্থ বোধ করেন। গর্ভবতী স্ত্রীর ব্যাপারে কোনও ঝুঁকি নিতে নারাজ ইমরান সঙ্গে সঙ্গে স্ত্রীকে শক্তিনগর জেলা হাসপাতলে ভর্তি করেন। ইমরান মন্ডল জানান, চিকিৎসার স্বার্থে জেসমিনাকে রক্ত দেওয়ার প্রয়োজন বলে জানান হাসপাতালের এক চিকিৎসক। তারপর ওই চিকিত্সকই হাসপাতালের তরফে রক্তের বন্দোবস্ত করে জেসমিনাকে রক্ত দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। কিন্তু ওই রক্তের সঙ্গে জেসমিনার রক্তের গ্রুপ মেলেনি বলে অভিযোগ ইমরানের। তিনি জানান, জেসমিনার রক্তের গ্রুপ ‘ও পজিটিভ’। তার বদলে তাঁকে ‘এ পজিটিভ’ রক্ত দেওয়া হয়। ঘটনাটি তাঁদের নজরে এলে ওই চিকিৎসক তড়িঘড়ি রক্তের ব্যাগটি পরিবর্তনের ব্যাপারে নার্সকে জানান। কিন্তু ততক্ষণে যা ক্ষতি হওয়ার হয়ে গিয়েছে। বর্তমানে অন্তঃসত্ত্বা জেসমিনা মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।

জেসমিনাকে ভুল রক্ত দেওয়ার ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই হাসপাতাল চত্বরে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দেয়। তাঁর স্বামী সহ পরিবারের লোকেরা হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভ দেখান। সুবিচার চাইতে অভিযুক্ত চিকিৎসকের বিরুদ্ধে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ইমরান। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছে এবং ঘটনাটি তদন্ত করে দেখার আশ্বাস দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here