kolkata bengali news

Highlights

  • সাড়ে তিন কোটি টাকার মাদক সহ চার কুখ্যাত মাদক পাচারকারীকে গ্রেফতার
  • গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশের স্পেশাল টাস্কফোর্সের আধিকারিকরা
  • দুটি গাড়ির বিভিন্ন গোপনে অংশে লুকিয়ে ইয়াবা ট্যাবলেট পাচার করছিল

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বিশেষ অভিযান চালিয়ে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকার মাদক সহ চার কুখ্যাত মাদক পাচারকারীকে গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশের স্পেশাল টাস্কফোর্সের আধিকারিকরা। ধৃত চার জনের মধ্যে দুজন মালদার বাসিন্দা, তারা মূলত পাচারকারীদের সহযোগী হিসেবে কাজ করছিল বলে পুলিশ সূত্রে খবর। শনিবার বিকেলে ময়দান থানা এলাকার সাঈদ বাবা মাজারের কাছ থেকে আটক করা হয় চার মাদক পাচারকারীকে। ধৃতদের মধ্যে মূল পাণ্ডা দুজন মনিপুর এবং সহযোগী দুজন মালদার বাসিন্দা। দুটি গাড়ির বিভিন্ন গোপনে অংশে লুকিয়ে ইয়াবা ট্যাবলেট পাচার করছিল বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এসটিএফ সূত্রে খবর, সম্প্রতি গোয়েন্দাদের কাছে খবর আসে, একটি গাড়িতে করে ভিন রাজ্য থেকে বিপুল পরিমাণে নিষিদ্ধ মাদক পাচার হতে পারে। গোপন সূত্রে পাওয়া এই খবর অনুযায়ী মাদক পাচারকারীদের অপেক্ষায় ফাঁদ পাতেন স্পেশাল টাস্কফোর্সের আধিকারিকরা। পুলিশ সূত্রে খবর, শনিবার বিকেল ৫টা ৫০ নাগাদ মিনিট নাগাদ ময়দান থানা এলাকার সঈদ বাবা মাজারের কাছেই রাজ্যের নম্বর প্লেট লাগানোই দুটি সন্দেহজনক গাড়ি আটক করা হয়। শুরু হয় চিরুনি তল্লাশি। এসটিএফ সূত্রে খবর, গাড়িটির সামনের ও পেছনের দরজার বিভিন্ন গোপন স্থান থেকে উদ্ধার হয় লুকিয়ে রাখা প্রচুর পরিমাণ ইয়াবা ট্যাবলেট। উদ্ধার হয় ১লক্ষ ২০হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, যার ওজন প্রায় ১৩কেজি ৬০০গ্রাম ইয়াবা ট্যাবলেট। পুলিশ সূত্রে খবর, উদ্ধার হওয়া মাদকের আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা বেআইনি বাজারে।

kolkata news

এরপরই গ্রেফতার করা হয় গাড়িতে থাকা চার মাদক পাচারকারীকে। পুলিশ সূত্রে খবর ধৃত চার জনের মধ্যে মহম্মদ ফাকির আহমেদ এবং মহম্মদ জিয়াউর রহমান মনিপুরের বাসিন্দা। এছাড়াও আতিউর রহমান এবং আমিরুল শেখ মালদা জেলার কালিয়াচকের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, মালদার আতিউর এবং আমিরুল দুই মনিপুরী মাদক পাচারকারীর সহযোগী হিসেবে কাজ করছিল। ধৃতদের আজ আদালতে পেশ করে নিজেদের হেফাজতে চাইবেন তদন্তকারী আধিকারিকরা। ধৃতদের জেরা করে এই পাচার চক্র সম্পর্কে আরো বিস্তারিত তথ্য হাতে আসতে পারে বলে মনে করছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here