ডেস্ক: বলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী হিসাবে নিজের জায়গা আগেই প্রতিষ্ঠিত করেছেন হেমা মালিনী । বড়পর্দায় নিজের অভিনয় প্রতিভার পর এসেছেন রাজনীতির কঠিন ময়দানে। ২০০৩ সালে অটল বিহারী বাজপেয়ীর আমলে বিজেপির হয়ে রাজ্যসভার সদস্য হিসাবে যোগদান করেন তিনি। কিন্তু তখন সক্রিয় রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন না হেমা। তারপর ২০০৪ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপি তে যোগদান করেন হেমা। ২০১০ সালে বিজেপির সাধারন সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত করা হয় হেমাকে। ২০১১ সালে ফের রাজ্যসভার সদস্য হোন তিনি। তারপর মথুরা থেকে ২০১৪ সালে ভোটে জিতে বিজেপি সাংসদ হিসাবে উঠে আসেন তিনি। লোকদলের নেতাকে বিপুল ভোটে হারিয়ে রাজনীতিতে পোক্ত জায়গা বানিয়ে নিয়েছেন হেমা।

কিন্তু গতকাল তাঁর রাজনীতির জার্নি নিয়ে সরাসরি মুখ খোলেন হেমা। তাঁকে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন মুখ্যমন্ত্রী হওয়া নিয়ে। হেমা যদিও আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন যে তিনি মুখ্যমন্ত্রী হতে চান না। কারণ সাংসদ হিসাবেই তিনি ঠিক আছেন। কিন্তু গতকাল তিনি জানান যে ‘আমি চাইলে মিনিটের মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী হতে পারি।” কার্যত সমস্ত জল্পনা উড়িয়ে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর মসনদে তাহলে কী হেমা বসতে চলেছেন সেই জায়গায়। সেই বিষয়ে জল্পনার মাঝেই হেমা জানিয়েছেন যে ”আমি চাই না যে আমার জীবন ব্যতিব্যস্ত হয়ে যাক। কারণ মুখ্যমন্ত্রী হওয়া মানে আমার সাধারন স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ ঘটবে, আমি সারাদিন এইভাবে বন্ধনে থাকতে চাই না।” তিনি এও জানান যে ”আমাকে লোকে চেনেন একজন বলিউড অভিনেত্রী হিসাবে”। যার নাম ড্রিম গার্ল’। নিজের অভিনয় জীবনে ২০০ টির বেশি সিনেমাতে অভিনয় করেছেন হেমা মালিনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here