নিজস্ব প্রতিবেদক, কোচবিহার: শান্ত প্রকৃতির ছেলে ছিল মাজিদ আনসারি। দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র, আনসারি খুব অল্প দিনের মধ্যেই সবার কাছের মানুষ হয়ে উঠেছিল। কেউ অসুবিধায় পড়লে তার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিত। কোনও অন্যায় সে সহ্য করতে পারত না। আর তাঁর এই মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা কোচবিহার।

মঙ্গলবার সকালে মাজিদের মৃত্যুর খবর পেয়ে অন্ধকার নেমে আসে কোচবিহার কলেজে। পাড়ার সব স্কুল এবং কলেজ বন্ধ করে দেয় তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। দফায় দফায় চলতে থাকে বিক্ষোভ। বিক্ষোভে ফেটে পড়েন পড়ুয়ারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে পুলিশ কর্তাদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়। অভিযোগ, মাজিদ খুনে কেন এখনও পর্যন্ত মুন্নাকে গ্রেপ্তার করা হয় নি। এরই মধ্যে এক ছাত্রী ব্লেড দিয়ে নিজের হাত কেটে ফেলে। তড়িঘড়ি তাকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে।

প্রসঙ্গত, গত ১৩ জুলাই কলেজ থেকে বাড়ি ফিরছিলেন মাজিদ। ঠিক সেই সময় কোচবিহার শহরের চৌপাথী এলাকায় কয়েকজন দুষ্কৃতীরা পয়েন্ট ব্ল্যাক রেঞ্জ থেকে পরপর দুটি গুলি করে তাকে। প্রথম গুলি ফসকে গেলেও পরের গুলিটি এসে লাগে তাঁর পেটে। ঘটনাস্থলেই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে মাজিদ। এরপর তাকে শিলিগুড়ির একটি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে নার্সিংহোমে মৃত্যু হয় তাঁর। তরুণ এই ছাত্র নেতের মৃত্যুতে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here