ডেস্ক: স্থানীয় একজনের বাইক সারিয়ে দিয়েছিলেন। বাইকটি সারাতে দেড় হাজার টাকা খরচা হয়েছিল । সেই পাওনা টাকাই চাইতে গিয়ে অবশেষে কাটা গেল এক যুবকের। ভয়ঙ্কর এই ঘটনাটি ঘটেছে মালদার বৈষ্ণবনগরে। আহত ওই যুবকের নাম সুজন সিংহ। গুরুতর জখম অবস্থায় তাকে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৈষ্ণবনগরের বাখরাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের সবদলপুর গ্রামের সুজন সিংহ নিজেই মোটরবাইক মিস্ত্রি। জানা গিয়েছে, প্রায় এক বছর আগের কথা। লিটন সিংহ নামে এক ব্যাক্তির মোটরবাইকটি খারাপ হয়ে গেলে সুজন সেটি সারিয়ে দেয়। কিন্তু বাইক সারানোর টাকা ফেরত দেয়নি লিটন। বারে বারে চেয়েও সেই টাকা চেয়েও ফেরত পাওয়া যায়নি।

অভিযোগ, প্রথমে বুধবার রাতে সুজন টাকা চাইলে লিটন ফের একবার টাকা দিতে অস্বীকার করে৷ এই নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে বচসা হলেও সেই সময় তা মিটে যায়৷ অভিযোগ, এরপরেই বৃহস্পতিবার দলবল নিয়ে এসে সুজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায় লিটল, বেধড়ক মারধরও করা হয় সুজনকে। সুজনের ডান কানের বেশ কিছুটা অংশ কাটা যায়। সুজনের চিৎকার শুনে ছুটে স্থানীয়রা ছুটে এলে তারপরই অভিযুক্তেরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। গুরুতর জখম অবস্থায় আহতকে উদ্ধার করে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। আহতের পরিবারের তরফে ঘটনার পর বৈষ্ণবনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয় ৷ অভিযুক্তরা পলাতক৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here