kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, আলিপুরদুয়ার: বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক। পরে বিয়ে করতে বেঁকে বসায় প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন যুবতী। ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুরদুয়ার ২ নম্বর ব্লকের অন্তর্গত বড়চৌকিরবস এলাকায়। জানা গিয়েছে, ৬ মাস আগে উত্তর মহাকালগুরির ওই যুবতীর সঙ্গে বড়চৌকিরবস দাসপাড়া এলাকার তনয় দাসের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বেশ কয়েকবার ওই যুবতীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তনয়। কিন্তু হঠাৎই বিয়েতে আপত্তি জানায় তনয়। বারংবার অনুরোধ করেও কোনও লাভ হয়নি ওই যুবতীর।

এরপর বাধ্য হয়ে লকডাউনের মাঝে শনিবার বিকেল বেলায় তনয়ের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসেন ওই যুবতী। ওই যুবতীর কোনও কথায় কর্ণপাত করেনি তনয় দাসের পরিবার। ঘটনার খবর পেয়ে শনিবার মাঝরাতে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় শামুকতলা থানার পুলিশ। পুলিশ পৌঁছনোর আগের মুহূর্ত পর্যন্ত অন্ধকার ও নির্জন এলাকায় একাই বসে থাকেন ওই যুবতী। কোনও রকম সহযোগিতা করেনি তনয় দাসের পরিবার।

শামুকতলা থানার পুলিশ পৌঁছে বিশদ জানতে পেরে ওই যুবতীকে উদ্ধার করে। তনয় দাস পলাতক। এই ঘটনায় পুলিশ তনয় দাসের দাদাকে আটক করেছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ওই যুবতী জানিয়েছেন, বিয়ে করবে বলে আমার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে তনয়। সম্পর্ক এগিয়ে যাওয়ার পর একাধিকবার আমাদের শারীরিক সম্পর্ক হয়। এরপর হঠাৎ বিয়েতে বেঁকে বসে তনয়। প্রতিবাদে আমি তার বাড়ির সামনে ধর্নায় বসি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here