নিজস্ব প্রতিবেদক, খড়গপুর: অবশেষে খড়গপুর শহর সংলগ্ন কলাইকুন্ডা এলাকায় নাবালক খুনের কিনারা করল পুলিশ। তদন্তে পরে সোমবার প্রতিবেশী যুবক মিলন মুদিকে পুলিশ গ্রেফতার করে। জেরায় অভিযুক্ত দোষ স্বীকার করে জানিয়েছে, নাবালকের বাবার সঙ্গে পুরনো শত্রুতার জেরে বদলা নিতেই রাতের বেলা শ্বাসরোধ করে ছ-বছরের ওই শিশুকে মাঠে খুন করে সে। উল্লেখ্য, গত ২২শে জানুয়ারি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর শহর সংলগ্ন কলাইকুন্ডা এলাকায় গ্রামের পাশে মাঠে বস্তার উপরে পড়ে থাকা এক নাবালকের নিথর দেহ উদ্ধার হয়েছিল। সুজয় মুদি(৬) নামে ওই নাবালক আগের রাত থেকেই নিখোঁজ ছিল। রাতভর ওই নাবালকের বাবা-মা তার খোঁজ করেছে। পরদিন সকালে গ্রামবাসীরা মাঠে দেহ পড়ে থাকতে দেখে বাড়ির লোককে ও পুলিশকে জানান। সুজয়কে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছিল বলে পুলিশ সেই সময় জানতে পেরেছিল।

খড়গপুর গ্রামীণ থানার পুলিশ তদন্তে নেমে সোমবার সকালে ওই গ্রামের বাসিন্দা সুজয় মুদির প্রতিবেশী কাকু মিলন মুদিকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশের জেরায় ওই যুবক নিজের দোষ স্বীকার করেছে। জানা গিয়েছে মিলন মুদি চরিত্রের দিক থেকে খারাপ ছিল। যে কারণে পাড়ায় বিভিন্ন লোকের সঙ্গে ইতিপূর্বে গন্ডগোল হয়েছে তার। একই কারণে নাবালক সুজয়ের বাবা তপন মুদির সঙ্গে গত দু’বছর আগে গণ্ডগোল হয়েছিল। তপন মুদি দুশ্চরিত্র মিলন মুদিকে বেধড়ক মারধর করে ছিল দুবছর আগে। সেই রাগেই বদলা নিতে দু’বছর পর মিলন মুদি ২১শে জানুয়ারি রাতে নাবালক সুজয়কে মাঠে নিয়ে গিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করে ফেলে দেয়। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে সোমবার তোলা হয়েছে মেদিনীপুর আদালতে। মৃত সুজয় মুদির বাবা তপন মুদি জানান জানান-ওর স্বভাব চরিত্র এমনিতেই খারাপ ছিল, তাই ওকে কেউ দেখতে পারত না। আমরা ওর ফাঁসির দাবি করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here