bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি, ব্যারাকপুর: বিনা চিকিৎসায় ফের মৃত্যুর ঘটনা রাজ্যে। এবার ঘটনাস্থল ব্য়ারাকপুরের কাঠালিয়া। অভিযোগ, কয়েকটি হাসপাতাল ঘুরেও ভর্তি হতে পারেনি বছর বাইশের যুবক। ফলে চিকিৎসা না পেয়েই প্রাণ হারান দীপঙ্কর সিংহরায় নামে বড় কাঁঠালিয়ার বাসিন্দা ওই যুবক।

অভিযোগ, করোনা সন্দেহে ওই যুবককে ভর্তি নেয়নি হাসপাতালগুলো। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বছর তিনেক ধরে নার্ভের সমস্যায় ভুগছিল দীপঙ্কর। বৃহস্পতিবার বিকেলের পর থেকে শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। এরপর ব্য়ারাকপুরের পুরসভা পরিচালিত মাতৃসদন হাসপাতালে নিয়ে গেলেও তাকে ভর্তি নেওয়া হয়নি।

মৃতের পরিবারের অভিযোগ, করোনা সন্দেহে ওকে ভর্তি নেওয়া হয়নি। মাতৃসদন থেকে তৎক্ষনাৎ ওকে ব্যারাকপুর বি এন বোস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অভিযোগ, ঠিকমতো চিকিৎসা না করেই ইঞ্জেকশন ও অক্সিজেন দিয়ে ওকে কামারহাটি সাগরদত্ত হাসপাতালে স্থানান্তরিত করে দেওয়া হয়।

মৃত যুবকের পরিবারের আরও দাবি, দীপঙ্করের শারীরিক অবস্থা খুব খারাপ ছিল। তাই সাগরদত্ত হাসপাতালে না নিয়ে গিয়ে বারাকপুর লালকুঠির কাছে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু ওই হাসপাতালের কাছে পথেই মৃত্যু হয় যুবকের।

মৃতের আত্মীয়দের দাবি, বিনা চিকিৎসায় দীপঙ্করের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি নিয়ে চিকিৎসা করলে ওঁকে বাঁচানো যেত। বারাকপুর পুরসভার প্রশাসক উত্তম দাস বলেন, এভাবে মৃত্যু মেনে নেওয়া যায় না। তবে কেন ওকে হাসপাতালে ভর্তি নেওয়া হয়নি। তা অবশ্যই তদন্ত করে দেখা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here